Traffic Rules – পশ্চিমবঙ্গে ট্রাফিক আইনে নতুন সংযোজন। না মানলে দ্বিগুণ ফাইন। কারও ভালো হলো, কারো বিপদ বাড়লো।

নতুন বছরে বদলে ফেলা হলো রাজ্যে ট্রাফিক আইন (Traffic Rules). আগের নিয়ম আর থাকছে না এবার। এখন থেকে ট্রাফিক আইন ভঙ্গের উপর জরিমানা নিয়ে কড়া হতে চলেছে সরকার। সম্প্রতি কলকাতা পুলিশ (Kolkata Police) মারফত এই নতুন নিয়ম চালু করার কথা বলা হয়েছে। সেখানে ইতিমধ্যেই শুরুও হয়ে গেছে এই ব্যবস্থা। জানা যাচ্ছে, রাজ্যের অন্যান্য প্রান্তেও শীঘ্রই তা লাগু করতে উদ্যোগী রাজ্য সরকার।

Advertisement

Traffic Rules Change Details.

কিন্তু এতে সাধারণ মানুষের লাভ না ক্ষতি হচ্ছে? অনেকের প্রতিক্রিয়া থেকেই স্পষ্ট, কেউ পেলেন সুবিধা এতে, আবার কেউ পড়লেন মহা অসুবিধায়। বর্তমানে ইউপিআই বা ইউনিফাইড পেমেন্ট ইন্টারফেস একটি জনপ্রিয় অনলাইন পরিষেবা। শপিং মল থেকে শুরু করে ঘুমটি দোকান সকল স্থানেই বর্তমানে ইউপিআই এর ব্যবহার দেখা যাবে। যে কোনো ধরনের পেমেন্ট করা হোক। আর এবারে Traffic Rules এর জরিমানা দিতেও এই ব্যবস্থা চালু হচ্ছে।

Advertisement

QR Code Scam করলে বা UPI ID বসালে এক লহমায় টাকা ট্রানজেকশন করা সম্ভব হয় এক ব্যক্তির থেকে অন্য ব্যক্তির একাউন্টে। এই অনলাইন প্রক্রিয়াটি অত্যন্ত সুরক্ষিত এবং এখানে নগদের কোন আদান-প্রদান না হওয়ায় ঝুঁকিও নেই। ইউ পি আই এর বিভিন্ন সুবিধার জন্য এবার রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিল ট্রাফিক আইনে (Traffic Rules) এই সিস্টেম চালু করার।

Traffic Rules কি কি পরিবর্তন হল?

সম্প্রতি রাজ্য সরকারের (Government Of West Bengal) তরফে এক ঘোষণায় বলা হয়েছে, এবার থেকে ট্রাফিক আইন ভঙ্গ (Traffic Rules Fine) করলে ইউপিআই এর মাধ্যমে দিতে হবে স্পট ফাইনের টাকা। বর্তমানে ট্রাফিক সার্জেন্টরা ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে এনআইসি ই–চালান (E Chalan) এবং কেটিপি ই–চালান ব্যবহার করেন। এই ই–চালানের ক্ষেত্রে ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডে (Debit Card) স্পট ফাইন দেওয়া যায়। কিন্তু এবার সেখানে ইউপিআই এর ও সংযোজন করল রাজ্য সরকার।

২০২৩ সাল থেকেই রব উঠেছে এই নিয়ে। কিন্তু কার্যকর হয়নি তা। অবশেষে নতুন বছরে এই ব্যবস্থাটি করেই ফেলল রাজ্য। জানা যাচ্ছে এখনো পর্যন্ত কলকাতা পুলিশের লালবাজার (Lalbaazar) এলাকাতেই এই নিয়ম চালু (Traffic Rules) হয়েছে। সেখানকার কয়েকজন ট্রাফিক সার্জেন্টকে এই নিয়ে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। তারা বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে এই পদ্ধতিতেই জরিমানা গ্রহণ করছেন। তা সফল হলে খুব শীঘ্রই রাজ্যের অন্যান্য ট্রাফিক এলাকা গুলিতেও এই আইন আনছে সরকার।

Advertisement
Ration Dealer (রেশন ডিলার পদে নিয়োগ)

Traffic Rules কি সুবিধা হবে আর কি অসুবিধা?

  1. UPI ব্যবহারের ফলে সম্ভব হবে ক্যাশলেস ট্রানজেকশন। কোন রকম টাকা পয়সা বহন করতে হবে না কাউকে। যার ফলে ঝুঁকি কমবে টাকা হারিয়ে যাওয়ার।
  2. নতুন ব্যবস্থায় জরিমানার টাকা সরাসরি পৌঁছাবে ট্রাফিক গার্ড দের কাছে গিয়ে। ফলে টাকা চোট যাওয়ার কোনো সম্ভাবনাও নেই।
  3. ইউপিআই ট্রানজেকশনের (UPI Transaction) ফলে অনলাইন রিসিপ্ট কপি পেয়ে যাবেন ফাইন প্রদান কারীরা।
  4. তবে এখানে আরো যে একটি সুবিধা রয়েছে তা হল, ইউপিআই ব্যবহারের ফলে এক মাসে কতজন ব্যক্তি ট্রাফিক আইন ভঙ্গ (Traffic Rules) করেন তারও রেজিস্টার থাকবে সরকারের কাছে।

রান্নার গ্যাসে ভর্তুকি 500 টাকা বাড়ানো হবে। মোদী সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

এবার Traffic Rules নিয়ে অসুবিধার কথা বলতে গেলে, এমন অনেক ব্যক্তিই আছেন যাদের ইউপিআই নেই বা থাকলেও হয়তো ব্যবহার করতে জানেন না। এক্ষেত্রে বিপদে পড়তে চলেছেন তারাই। কিন্তু এখনো এই নিয়ম সমগ্র পশ্চিমবঙ্গে (West Bengal) শুরু হয়নি। তাই সকলের এই নিয়ে চিন্তা করার কোন দরকার নেই। তবে অনেকেই মনে করছেন আগামীদিনে এই নিয়ম সর্বত্র শুরু হতে পারে।
Written by Nabadip Saha.

বাড়ি বসেই সহজ কয়েকটি স্টেপ ফলো করে বানিয়ে নিন ডিজিটাল রেশন কার্ড।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment