Upper Primary TET – আটকে গেল উচ্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া। চাকরিপ্রার্থীদের স্বপ্নভঙ্গ।

মাত্র কিছুদিন আগেই প্রকাশিত হয়েছে উচ্চ প্রাথমিকের মেধা তালিকা (Upper Primary TET Merit List). বহু ঝুট ঝামেলার পর কোর্টের নির্দেশ মতো কোনো রকম দুর্নীতি সম্ভাবনা না রেখে স্কুল সার্ভিস কমিশন কথা দিয়েছিল এই মেধাতালিকা প্রকাশ করার। কিন্তু নিজেদের কথা রাখতে পারেনি তারা। সদ্য এই মেধা তালিকা প্রকাশ করার পরই পরীক্ষার্থীরা তাতে খুঁজে পান বিভিন্ন অসঙ্গতি।

Advertisement

West Bengal SSC Upper Primary TET merit List

আর সেই নিয়ে আবারও শুরু হয় রাজ্যজুড়ে ব্যাপক ঝামেলা‌ ঝঞ্জাট। ফের হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয় পরীক্ষার্থীদের দাবিতে। রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে গত দশ বছর ধরে ঝামেলার তো শেষ নেই। তবুও স্কুল সার্ভিস কমিশনের কথা অনুযায়ী পরীক্ষার্থীর আশা করেছিল যে এবার অন্তত তারা ন্যায় বিচার পাবেন। কিন্তু সরকার আবারও বুঝিয়ে দিল যে বেড়ালের ভাগ্যে শিকে এত সহজে ছেঁড়ার নয়।

Advertisement

প্রাথমিক (WBBPE Primary TET) থেকে শুরু করে উচ্চ প্রাথমিক (Upper Primary TET) ও উচ্চমাধ্যমিক বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষক শিক্ষিকা নিয়োগ (Teacher recruitment) নিয়ে গত ১০ বছর ধরে রাজ্যে চলে আসছে বিভিন্ন ধরনের বিক্ষোভ, ঝামেলা, মামলা ইত্যাদি। হাইকোর্ট পেরিয়ে বিষয়টি গড়িয়েছে সুপ্রিম কোর্টের দরজা পর্যন্তও।

যোগ্য পরীক্ষার্থীরা তাদের যোগ্যতার দাম পাওয়ার আশায় করে চলেছেন দীর্ঘ লড়াই। ২০১৪ সালের উচ্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় দুর্নীতি, ২০১৬ সালের উচ্চ প্রাথমিক নিয়োগের পরীক্ষায়ও ঘুষের মাধ্যমে অযোগ্য প্রার্থীদের চাকরি প্রদান, ২০১৭ সালের প্রাথমিক টেট পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রের ছয়টি প্রশ্ন ভুল এবং ২০২০ সালের প্রাইমারি টেট পরীক্ষায় অপ্রশিক্ষিত প্রার্থীদের দুর্নীতির মাধ্যমে চাকরি প্রদান ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কোর্টে একাধিকবার দায়ের করা হয়েছে বিভিন্ন মামলা।

এই নিয়ে লড়াইয়ের ময়দানে অবতীর্ণ হয়েছেন বহু পরীক্ষার্থী। যদিও শেষপর্যন্ত দুর্নীতির জাল কাটিয়ে এইসব নিয়োগ মামলায় একের পর এক রায় ঘোষণার মাধ্যমে অপরাধীদের শাস্তি দেওয়া এবং যোগ্য প্রার্থীদের নিয়োগ পাইয়ে দিয়ে হাইকোর্ট কিছুটা স্বস্তি দিতে পেরেছিল তাদের। এমনকি হাইকোর্টের নির্দেশেই ২০১৪ সালের উচ্চ প্রাথমিক স্তরের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার মেধা তালিকা সংশোধন করে পুনরায় প্রকাশ করেছে এবারে কমিশন। কিন্তু এ নিয়েও ধোঁয়াশার অন্ধকার কাটছে না রাজ্যে কিছুতেই।

Advertisement

এই Upper Primary TET মামলাটি ২০২০ সালে বিচারপতি মৌসুমি ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে উঠলে তিনি পুরনো নিয়োগ তালিকা বাতিল করে দেন এবং নির্দেশ দেন নতুন করে ইন্টারভিউ নিয়ে নিয়োগ তালিকা প্রকাশ করতে। সেই অনুযায়ী ২০২১ সালে আবারও কমিশন নতুন তালিকা প্রকাশ করে। সেখানে আবার অভিযোগ ওঠে প্রথম Upper Primary TET Merit List মেধা তালিকায় যাদের নাম ছিল তাদের নাম সেখানে নেই। পরবর্তী কালে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে সেই মামলাটি আবার ওঠে।

তখন তিনি নির্দেশ দেন যে মামলা কারীরা তাদের সেই অভিযোগ কমিশনের কাছে জানাতে পারবেন। সেই অনুযায়ী ১৫০ জন পরীক্ষার্থী সেই মেধা তালিকা কে চ্যালেঞ্জ করে অভিযোগ জানান স্কুল সার্ভিস কমিশনের কাছে। তারপর এই মামলাটি আবার যখন বিচারপতি তালুকদারের ডিভিশন বেঞ্চে যায় তখন তিনিও এক্ষেত্রে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশকেই বহাল রাখেন। যদিও স্কুল সার্ভিস কমিশন এ ব্যাপারে জানায় যে যাদের নাম Upper Primary TET তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে তাদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা নেই বলেই করা হয়েছে এমনটা।

Upper Primary Merit List (আপার প্রাইমারী মেরিট লিস্ট)

এই Upper Primary TET মামলার জেরে বুধবার বিচারপতি সৌমেন সেনের ডিভিশন বেঞ্চে ওই ১৫০ জন মামলাকারীর আইনজীবী আশীষ কুমার জানান যে, স্কুল সার্ভিস কমিশন সম্পূর্ণ বিষয়টিকে ভুল ভাবে যাচাই করেছে। কারণ সেই সমস্ত পরীক্ষার্থীদের যথেষ্ট যোগ্যতা রয়েছে। সেইমতো প্রথম মেধা তালিকায় তারা স্থান পেলেও দুর্নীতির মাধ্যমে সংশোধিত মেধা তালিকায় নাম ওঠানো হয়নি তাদের।

আরও পড়ুন, বাতিল হতে পারে আপার প্রাইমারীর মেধা তালিকা, জানতে ক্লিক করুন।

এরপর সেদিন মামলার শেষে বিচারপতি সৌমেন সেন এই রায় দেন যে পুনরায় স্কুল সার্ভিস কমিশনকে সেই মেধা তালিকা সংশোধন করে প্রকাশ করতে হবে। সেইসঙ্গে এও নির্দেশ দেওয়া হয় যে ৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সমস্ত মামলা কারী কে তাদের লিখিত বক্তব্য জমা দিতে হবে কোর্টে এবং ১৩ই সেপ্টেম্বরের মধ্যে স্কুল সার্ভিস কমিশনকে উত্তর দিতে হবে তার। সেই অনুযায়ী ১৪ই সেপ্টেম্বর মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

আরও পড়ুন, 16500 টেট মামলার রায় ঘোষণা। B.Ed. ও DElEd. প্রার্থীদের গুরুত্বপূর্ণ রায়।

তবে এরই মাঝে সেই নির্দেশ মত স্কুল সার্ভিস কমিশন (WBSSC) যে নতুন উচ্চ প্রাথমিকের সংশোধিত নিয়োগ তালিকা প্রকাশ করেছে, তাতেও অসঙ্গতির শেষ নেই বলে মনে করেছেন পরীক্ষার্থীরা। আর Upper Primary TET নিয়ে আবারো শুরু হতে পারে নতুন ঝামেলা রাজ্যে। এখন দেখা যাক বারবার একই অন্যায়ের বিরুদ্ধে কোর্ট পরীক্ষার্থীদের স্বপক্ষে কি রায় দেয় শেষ পর্যন্ত।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment