WB Summer Vacation

WB Summer Vacation : গরমের ছুটি কি বাড়বে? প্রশ্ন কলকাতা হাইকোর্টের।

দুই বছর পর স্কুল খোলায়, দেড় মাসের ও বেশি সময় ধরে গরমের ছুটি (WB Summer Vacation) দেওয়ায় আদালতে মামলা হয়। আর আজ সেই মামলার শুনানি ছিলো। আর আজ, রাজ্যের স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি কি আরো বাড়বে? প্রশ্ন করলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি। যার উত্তরে রাজ্যের স্থান আজ স্পষ্ট করে দিলেন, রাজ্যের সরকারী আইনজীবী।

অতিমারী পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন ধরেই স্কুলগুলি বন্ধ রয়েছে। স্বাভাবিক পঠন-পাঠন চালু নেই। তারপরে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হতেই স্কুল খোলার প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই গ্রীষ্মের দাবদাহের কারণে গরমের ছুটি এগিয়ে দেয় রাজ্য সরকার। সেই সময়ে রাজ্য জুড়ে তীব্র গরমের কারণে 2 মে থেকে 15 ই জুন পর্যন্ত রাজ্য সরকার সমস্ত স্কুলগুলোতে ছুটি ঘোষণা করে।

তার পরেও সেই অর্থে গরম না কমার কারণে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষাদপ্তরকে গরমের ছুটির (WB Summer Vacation) বিষয়ে আরো একবার ভাবনা চিন্তা করার নির্দেশ দেন। তারপরে শিক্ষা দপ্তর থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, গরমের ছুটি বৃদ্ধি করে 26 জুন পর্যন্ত করা হয়েছে।

স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি (WB Summer Vacation) বাড়ানোর বিষয়টি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়। জনস্বার্থে মামলাটি করেছেন JIV Maitree Trust সেই মামলার শুনানিতে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব রাজ্যের আইনজীবীর কাছে জানতে চান, স্কুলগুলিতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি আরো বাড়বে কিনা?

তার জবাবে রাজ্যের আইনজীবী জানান, সবটাই নির্ভর করছে আবহাওয়ার পরিস্থিতি উপরে। যদি আবহাওয়ার পরিস্থিতি ভাল হয় (WB Summer Vacation) তাহলে স্কুল খোলা যেতে পারে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে দরবার করা হয়েছে। তাদের বক্তব্য, বর্ষা এসে গিয়েছে। পরিবেশ মনোরম হচ্ছে। ফলে পঠনপাঠন শুরু করার জন্য স্কুল খোলার দরকার। শীঘ্রই সমস্ত স্কুল খুলে দেওয়া হোক। এছাড়া প্রথম পার্বিক মূল্যায়ন এখনো শুরু হয়নি। এদিকে বছর শেষ হওয়ার পথে।

EK24 News

এখনই সুপ্রিমকোর্টে যাচ্ছেনা রাজ্য, জুলাইতে রাজ্যের কর্মীদের এক প্রস্থ ডিএ ঘোষণা

কলকাতা হাইকোর্টের জনস্বার্থ মামলায় মামলাকারীর আইনজীবী বলেন, তীব্র গরম এখন নেই। বর্ষা এসে গিয়েছে। স্কুল বন্ধ থাকার (WB Summer Vacation) কারণে পড়ুয়ারা মিড-ডে-মিল পাচ্ছে না। তার উত্তরে সরকারী আইনজীবী জানান, যারা এই জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন, তাদের কাছে সঠিক তথ্য নেই।

স্কুল বন্ধ থাকলেও (WB Summer Vacation) রাজ্যের সমস্ত পড়ুয়ারা মিড ডে মিল পাচ্ছেন। মিড ডে মিল এর সুবিধা থেকে তারা বঞ্চিত হচ্ছেন না। এমনকি অতিমারীর সময় দুই বছর স্কুল বন্ধ থাকলেও প্রতি মাসে পড়ুয়াদের প্রাপ্য মিড ডে মিল সামগ্রী, এবং মাস্ক, সাবান, স্যানিটাইজার নিয়মিত দিয়েছে রাজ্য, যা অন্যান্য রাজ্যে বিরল।

এরপর এই রাজ্যের আইনজীবীর প্রশ্ন, মামলাকারী সঠিক তথ্য জানেন না। এই JIV মৈত্রী ট্রাস্টের সঙ্গে রাজ্যের কি সম্পর্ক। সেই বিষয়টিও তুলে ধরেন। এবং রাজ্য স্কুল খোলা নিয়ে কি ভাবছে, সেই প্রশ্নও আদালতে তোলেন। WB Summer Vacation.

স্বাবলম্বী হতে 10 লাখ টাকা দিচ্ছে কেন্দ্র, সবার আগে দেখুন কিভাবে পাবেন

তবে এদিন কলকাতা হাইকোর্টে প্রধান বিচারপতি রাজ্যের কাছে জানতে চেয়েছেন, স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি আর দীর্ঘায়িত হবে কিনা। যদিও রাজ্যের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সবটাই নির্ভর করছে আবহাওয়ার পরিস্থিতির ওপর। গরম বাড়লে রাজ্য তার সিদ্ধান্ত জানাবে, নতুবা আগামী ২৬ শে জুন পর্যন্ত গরমের ছুটি রয়েছে।

যদিও আজ শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, স্কুল খোলার নির্দেশ দেয়নি আদালত, পরবর্তীতে আদালত তার সিদ্ধান্ত জানাবে। এদিকে আগামী সপ্তাহে স্কুল খোলার কথা। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে আবার গরম পড়লে, ছুটি বাড়তে পারে, সেই ইঙ্গিত আদালতেই দিয়ে রাখলেন রাজ্যের সরকারী আইনজীবী। পরবর্তী আপডেট আসছে।
Written by Rajib Ghosh.

আরও পড়ুন, স্কুল খুললেই পরীক্ষা নিতে হবে, গরমের ছুটি নিয়ে আজ কি নির্দেশ দিলো শিক্ষাদপ্তর।

6 thoughts on “WB Summer Vacation – প্রয়োজনে গরমের ছুটি আবার বাড়তে পারে, আজ আদালতে জানিয়ে দিল রাজ্য সরকার।”
  1. আমাদের শুধু মিড-ডে-মিল এর কথা বলছেন কি হবে আমাদের আর ঘুরতে ভালো লাগছেনা 🏫 স্কুল আর কত দিন বাহানা দিয়ে বন্ধ রাখবেন। পড়াশোনাকে তো দিয়েছে বারোটা বাজিয়ে। Plz স্কুলটাকে খুলে দেওয়ার একটু কারণ খুঁজুন।

  2. এখন স্কুল মানে ঐক‍্যশ্রী কন‍্যাশ্রী ও অন‍্যান‍্য সব স্কলারশীপ আর মিড ডে মিলের চাল ডাল আলু সাবান ইত্যাদি। তখন গরমই কী আর অতি গরমই কী — ওসব কিছু না।

  3. বিষ্টি খুব হচ্ছে স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হোক

  4. নাটক নাকি যে গরমের নামে এতো দিন স্কুল বন্ধ থাকবে. আগেও এরথেকে বেশি গরম পড়েছে. কিন্তু স্কুল তো একটা নৃদিষ্ট দিন প্রজন্ত ছুটি দিয়েছিলো. আর এখন যখন মৌসুমী বায়ু প্রবেশ করেছে অনেক টাই ঠান্ডা হয়েছে পরিবেশ তখন আবার রাজ্য সরকারের শরীরে গরম ধরেছে. আমার একান্ত ভাবে মনে হয় রাজ্য সরকাররা মনে হয় মরুভুমি তে থাকে.

Leave a Reply

Your email address will not be published.