TET পাশ করা সমস্ত SSC ও Primary প্রার্থীদের সুখবর, 2 মাসের মধ্যেই চাকরী হবে, এইমাত্র সরকারি ঘোষণা।

হাইস্কুল ও প্রাইমারি শিক্ষক হবার প্রবেশিকা পরীক্ষা TET নিয়ে রাজ্য সরকারের নানা দুর্নীতি সামনে এসেছে বহুবার। টেট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীরা কবে চাকরি পাবেন, সেই বিষয়েও ধোঁয়াশা ছিল।
কিন্তু এদিন বিকেলে টেট (TET) পরীক্ষায় উর্ত্তীর্ণদের জন্য বড় বার্তা দিলেন প্রাথমিক শিক্ষা প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল।

Advertisement

TET উত্তীর্ণ প্রার্থীদের দ্রুত নিয়োগ হবে

এদিনের সরকারি বৈঠকে গৌতমবাবু জানান, ২০১৪ ও ২০১৭ সালে যেসব পরীক্ষার্থীরা টেট পাশ করেছেন এই বছরেই তাঁদের নিয়োগ হয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদী। অর্থাৎ যারা TET পাশ করেছে তাদের সকলেরই যে চাকরি হবে তা কিন্তু নয়। টেট পাশ এর অর্থ হলো শিক্ষক পদে চাকরির জন্য তিনি ইন্টারভিউ তে বসতে পারেন। তবে দীর্ঘদিন ধরে অনেকেই পাশ করে বসে আছেন, কিন্তু নিয়োগ হচ্ছে না। এবার আর কেউ বসে থাকবে না। ইন্টারভিউ তে ডাক পাবেন।

Advertisement

গৌতমবাবুর ভাষায়, ‘২০১৪ ও ২০১৭ সালে যাঁরা পাশ করেছেন, তাঁদেরও পরীক্ষা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। সংবাদমাধ্যমের দ্বারা আমি তাঁদের বার্তা দেব। চেষ্টা করব এবছরই যেন ওই দুই বছরের টেট (TET) উর্ত্তীর্ণদের চাকরি হয়ে যায়। আমি অন্তত যতদিন আছি অস্বচ্ছ কাজ করব না। ২০১৬ সালের যে নিয়ম আছে, সেই নিয়ম আইন অনুযায়ী কাজ করব। যাঁরা আন্দোলন করছেন তাঁদের আমি সমর্থন করি। তবে আমি তাঁদের অনুরোধ করব তাঁরাও যাতে এই বছর পরীক্ষায় বসেন৷’

এর পাশাপাশি, বুধবারের বৈঠকে জানানো হয়, ২০২০-২১ সালে মোট ১৬ হাজার ৫০০ ভ্যাকান্সি তৈরি হয় প্রাথমিক শিক্ষকের। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ নেন ২৯ হাজারের বেশি জন। কিন্তু তালিকাভুক্ত হয়েছিলেন প্রায় ১৩,৬৮৫ জন। আর, চাকরি পেয়েছিলেন ১৩ হাজার ৫৬৪ জন। পর্ষদ সভাপতি আরও জানান, ২০১৪ সালে TET পাশ করেও যাঁরা আন্দোলন করেছেন, যাঁরা ওই ১৩,৬৮৫ জনের মধ্যে ছিলেন না, তার সংখ্যা হল ১৬ হাজার ১০১ জন।

টেট মামলায় শুরু হলো শিক্ষক ছাঁটাই, কোন জেলায় কতজন অবৈধ শিক্ষক বরখাস্ত হচ্ছেন, দেখে নিন সেই তালিকা

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে যে TET পরীক্ষা হয়েছিল তার নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল ২০১৬ সালে। ওই বছর প্রায় ২০ লাখ পরীক্ষার্থী ছিলেন। এঁদের মধ্যে ১ লাখ ২৪ হাজার ৯৫২ জন পাশ করেন। তাঁদের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ নেন ১ লাখ ১৮ হাজারের বেশি। তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল ৪২ হাজারের কিছু বেশি জনকে।

Advertisement

বাড়িতে বসে প্রতিদিন মোটা অঙ্কের আয় করতে, মেনে চলুন এই 4 টি টিপস।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ কমিটি ইতিমধ্যেই জানিয়েছে, এই বছর ১৪ অক্টোবর থেকে শুরু হবে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে শিক্ষক নিয়োগের টেট পরীক্ষার আবেদন প্রক্রিয়া৷ ফর্ম পূরণের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটিই হবে অনলাইনে। টেট পরীক্ষা নেওয়া হবে ১১ ডিসেম্বর।এই বছর মোট ১১,০০০ শূন্যপদে নিয়োগ হবে।
Written by Antara Banerjee.

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment