WB School – স্টুডেন্ট কম থাকলে শিক্ষকদের অন্য স্কুলে বদলী হবে, তাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে ছাত্র খোজার নির্দেশ, স্কুলে অনুপস্থিত থাকা শিক্ষক দের লিস্ট চেয়ে পাঠানো হলো।

WB School –  রাজ্যের স্কুলে তিনটি জরুরী নির্দেশিকা

অতীমারী পরিস্থিতে রাজ্য তথা দেশের স্কুল কলেজ বহুদিন ধরে বন্ধ থাকার পর দীর্ঘ কুড়ি মাস পর রাজ্যে স্কুল কলেজ খোলে (WB School)। কিন্তু তারপর আবার কয়েকদিন আগেই সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করা হয়। আর এরই মধ্যে ছাত্র শিক্ষক অনুপাত, এবং ছাত্রসংখ্যা বৃদ্ধির জন্য পৃথকভাবে নির্দেশিকা প্রকাশিত হলো।

Advertisement

এছাড়াও স্কুল বন্ধ থাকায় বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজের জন্য শিক্ষকদের স্কুলে (WB School) উপস্থিত থাকার কথা বলা হয়েছিলো বিভিন্ন সময়ে। কিন্তু এই সমস্ত নির্দেশ অগ্রাহ্য করে দীর্ঘদিন ধরে যে সমস্ত শিক্ষক স্কুলে আসেননি, তাদের নামের লিস্ট চেয়ে পাঠালো শিক্ষা দপ্তর।

Advertisement

শিক্ষাদপ্তর সুত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গে ১৫৮৯৯টি স্কুলে পর্যাপ্ত শিক্ষক নেই। যেখানে প্রতি ছাত্র হিসাবে একজন করে শিক্ষক লাগে, সেখানে দেখা যাচ্ছে ৭০, ৮০, এমনকি ৯০ জন ছাত্র হিসাবে একজন শিক্ষক রয়েছেন। যার জন্য কার্যত এক শিক্ষকদের দ্বারা ক্লাস সঠিক ভাবে চালানো রীতিমত অসম্ভব (WB School)।

এই অবস্থায় স্কুল কমিশনারকে এই অনুপাত ঠিক করার নির্দেশ দিয়েছেন জয়েন্ট সেক্রেটারি। যে সমস্ত স্কুলে অনুপাতের তুলনায় কম পড়ুয়া আছে, সেই সব স্কুল থেকে শিক্ষক বদলী করে বেশী পড়ুয়া আছে, সেই সমস্ত স্কুলে (WB School) শিক্ষক ঘাটতি পূরন করা হবে।

শিক্ষার অধিকার আইন (RTE Act) অনুসারে ছাত্র শিক্ষক অনুপাত ৩০: ১ হতে হবে। অন্যথায় সারপ্লাস ট্রান্সফারের নির্দেশ দেওয়া হবে। এই নিয়ম অনুযায়ী যে শিক্ষক সবচেয়ে পরে সেই স্কুলে যোগদান করেছেন, তার অন্য স্কুলে (WB School) বদলী হবে।

Advertisement

আর সেই জন্যই বাড়ি বাড়ি পরিদর্শন করে ছাত্র ভর্তির নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শকের অফিস (DPSC) থেকে। ইতিমধ্যেই এই সম্মন্ধে নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে। WB School

দক্ষিন দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ অফিস থেকে প্রকাশিত নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, অতিমারী পরিস্থিতে ড্রপআউট সংখ্যা বেড়েছে, বিভিন্ন কারনে স্কুলে স্কুলে (WB School) ছাত্র সংখ্যা কমেছে, তাই পড়ুয়ারা যাতে বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষায় বঞ্চিত না হয়, সেই কারনে শিক্ষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ছাত্র ভর্তির অনুরোধ করা হলো, এবং বিদ্যালয় পরিদর্শকদেরও বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে বাধা, এবার কি হবে?

অন্যদিকে নতুন বছরে শিক্ষকদের স্কুলে থাকার নির্দেশ থাকার পরও বিভিন্ন শিক্ষক প্রধান শিক্ষকদের নির্দেশ অগ্রাহ্য করে স্কুলে না আসার জন্য শিক্ষকদের তালিকা চেয়ে পাঠালো হাওড়া জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের অফিস থেকে। এই কয়েকটি নির্দেশিকায় একটি বিষয় স্পস্ট যে এবার শিক্ষক ছাত্র অনুপাত এবং শিক্ষকদের বিভিন্ন নির্দেশিকা নিয়ে কড়া মনোভাব দেখা গেলো। আপনাদের মন্তব্য নিচে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। WB School

আরও পড়ুন, চাকরীর পাশাপাশি এই কাজটি আপনাকে এক্সট্রা ইনকাম দেবে

আরও পড়ুন, গ্যাস বুকিং এ ৫০ টাকা ক্যাশব্যাক পেতে ক্লিক করুন

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment