Advertisement
WB DA News 6th pay commission
Advertisement

WB DA News নিয়ে অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার।

গত ১৯শে আগস্ট ছিল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ (WB DA News) মিটিয়ে দেবার শেষ তারিখ। কিন্তু রাজ্য সেদিকে তো ভ্রক্ষেপই করে নি। বরং উল্টে সময় অতিক্রান্ত হবার সময় রাজ্য রিভিউ পিটিশন দাখিল করেছে হাইকোর্টে। যদিও পূর্বে তাদের করা রিভিউ পিটিশন খারিজ করা হয়েছে স্যাট এর তরফ থেকে।

Advertisement

পূর্ব ঘোষিত সুচি অনুযায়ী আজ তথা ২৭শে আগস্ট, ২০২২ তারিখে কোলকাতায় এক বিশাল মিছিলের সাথে সাথে মুখ্যমন্ত্রীকে গণ ডেপুটেশনের (WB DA News) আয়োজন করা হয় যেখানে রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি সংগঠনের হাজার হাজার কর্মচারীদের ঢল নামে আজ বৃষ্টিমুখর কোলকাতার রাস্তায়।

সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে ২৩ টি সরকারি সংগঠনের ‘’সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ’’ এর ডাকে একসাথে মিলিত হয়। এখানে জমায়েত হয়েছিল ডাক্তার, নার্স, শিক্ষক ছাড়াও আরো অনেক সংগঠন। তাদের দাবিতে ছিল বকেয়া ডি এ মিটিয়ে দেওয়া এবং রাজ্যের শূন্যপদে নতুন নিয়োগ করার দাবিতে।

Advertisement

তাদের দাবি অনুযায়ী, ২০১১ সালে এই সরকার ক্ষমতায় আসার আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি অঙ্গীকার করেছিলেন যে, তিনি সরকারি কর্মীদের পাশে থাকবেন। কোনো অসুবিধে হলে শুধুমাত্র একটি চিঠি দিলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। কিন্তু এখন তার কথার কোন মিলই পাচ্ছেন না রাজ্য সরকারি কর্মীরা।

‘’সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ’’ আরও দাবি করেন, যে, আদালতের রায় মেনে AICPI অনুযায়ী ডিএ (WB DA News) দেওয়া এবং শূন্যপদে কর্মী নিয়োগ নিয়ে রাজ্য সরকার কোনো রকম পদক্ষেপই নিচ্ছে না। 2006 এর পে কমিশনে সুপারিশ তখনও মানে নি। ফলে ডিএ বকেয়া হয় আর তার পরিমান বেড়েই চলে। আর 2016 সালের পে কমিশনে ডিএ (Dearness Allowance) এর উল্লেখই করা হয় নি। সুতরাং এই ডিএ নিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মীরা ভুক্তভোগী বহু বছর থেকেই।

EK24 News

ফলে পরবর্তীকালে এই বিষয়ে মামলা করা হয় স্যাটে এবং হাইকোর্টে। কিন্তু রাজ্য স্যাট হোক বা হাইকোর্ট, কারো কোনো রায়ের প্রতি ভ্রূক্ষেপ করে না। বরং তাদের আগের বক্তব্য ছিল যে, ডিএ কারও কোন অধিকার নয়। পরে বলা হয় যে, ডিএ দেবেন কোথা থেকে? রাজ্য সরকারের কাছে টাকা নেই। কিন্তু অন্যদিকে খেলা, মেলা, উৎসব এর পেছনে কোটি কোটি টাকা খরচ করে যাচ্ছে রাজ্য সরকার।

Advertisement

’সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ’’ এর এক সদস্যের দাবি, যে এবারে আবার পুজো প্যান্ডেলের অনুদান আরো 10 হাজার টাকা বেড়ে গিয়ে হয়েছে 60 হাজার টাকা। এছাড়া ফুটবল খেলা হচ্ছে। সেখানেও হচ্ছে অনেক খরচ। কোথাও আবার ক্লাবকে দেওয়া হচ্ছে 50 লক্ষ টাকা। সুতরাং যদি টাকাই না থাকে তবে এই অনুদানগুলি দিচ্ছেন কোথা থেকে?

রাজ্য সরকারি কর্মীদের সংগঠন কনটেম্পট মামলা করেন, যা মাননীয় বিচারপতি হরিস ট্যান্ডনের দেখার কথা ছিল গত 25শে আগস্ট। কিন্তু বিচারপতি মহাশয়ের বিশেষ অসুবিধার কারণে তা সেদিন ওঠে নি। তবে তারা আশাবাদী যে আগামী মাসের 5 তারিখে বিষয়টি (WB DA News) আদালতে উঠবে।

বারবার রাজ্যে রিভিউ পিটিশন না করে রাজ্য সরকার সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছেন না কেন? এই বিষয়ে তারা বলেন যে, যদি তারা এই বিষয়টি নিয়ে সুপ্রীম কোর্টে যায়, তাহলে এই বিষয়টি একটি সর্ব ভারতীয় বিষয় হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে। দেশের প্রত্যেক সরকারি কর্মীরা বিষয়টি বিশদে জেনে যাবেন।

Advertisement

ফলত সারা ভারতের মানুষই এটা অবগত হয়ে যাবেন যে ভারতবর্ষের একমাত্র রাজ্য যেখানে রাজ্য সরকারি কর্মীরা কেন্দ্রের 34% এর জায়গায় যৎসামান্য মাত্র 3% ডিএ পান। ফলে এই রাজ্যের সারা ভারতের কাছে একটা সম্মান হানি ঘটবে। যেখানে বিষয়টি মমতা ব্যানার্জীর প্রধানমন্ত্রী হবার স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। এমনটাই তাদের বক্তব্যে ফুটে উঠেছে।

আগামী 30 শে আগস্ট একটি কলম ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে সরকারি কর্মী সংগঠনগুলি। যেখানে 2 ঘন্টার কর্মবিরতি পালন করবেন তারা। সেখানেও সকল কর্মীদের আহ্বান জানানো হয়েছে। উস্থি, ইউনিটি ফোরাম, পশ্চিমবঙ্গ সরকারি কর্মচারী পরিষদ, গভ: এমপ্লয়ি সংগঠন, পেনশনার্স সংগঠন, ডাক্তারদের সংগঠন, নার্সদের সংগঠন ছাড়াই আরো সংগঠন এখানে আজ উপস্থিত ছিলেন।

আগামীতে তারা আরো বড়ো ধরণের পদক্ষেপ (WB DA News) গ্রহণের অঙ্গীকার করেছেন। তারা বলেছেন যে এই ধরণের বিক্ষোভ কর্মসূচির মাধ্যমে তারা সরকারকে যতদিন কোর্টের রায় মান্য করাতে পারবেন এবং নিজের দাবি আদায় না করতে পারবেন ততদিন তারা কঠিন থেকে কঠিনতর পদক্ষেপের দিকেই অগ্রসর হবেন। কারণ এটা তাদের ন্যায্য দাবি।

Advertisement

তারা আইনি এবং রাস্তার লড়াই- দুটিই চালাবেন একসাথে। কোনো সরকার সংবিধানকে অমান্য করতে পারেন না। ডিএ (WB DA News) হলো সরকারি কর্মীদের বেতনের একটি অংশ যা তাদের অধিকার এবং যা সরকার দিতে বাধ্য। এই অধিকার থেকে সরকার তাদের বঞ্চিত করলে অবশ্যই সংবিধান বিরোধী কাজ হিসেবে পরিগণিত হয়।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারী কর্মীদের এবার সম্পত্তির হিসেব দেওয়ার নির্দেশ, ধরে ধরে যাচাই হবে।

সরকারের একটি দাবি যে তারা যদি ডিএ দিয়ে দেন তাহলে রাজ্যের সমাজ কল্যাণমূলক কাজ বন্ধ করে দিতে হবে। এই বলে তারা রাজ্যের সাধারণ মানুষ এবং সরকারি কর্মীদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করছে। এর জবাবে তাদের বক্তব্য ডিএ টা তো তাদের বেতনেরই একটি অংশ। ডিভাইড অ্যান্ড রুল- পলিসিতে চলছে রাজ্য। এটা বেতনের অংশ যা সরকার এবং কর্মীদের মধ্যে হাওয়া একটি চুক্তি।

লক্ষী ভান্ডারে ৫০০ বা ১০০০ টাকা দিয়ে নাম কামাচ্ছে রাজ্য সরকার। কিন্তু রাজ্যের মাথায় এখন ৬ লক্ষ কোটির বিশাল দেনা। অর্থাৎ, হিসেব করলে তা প্রায় মাথাপিছু ৫০ হাজার টাকার কাছাকাছি। আবার রাজ্য সরকারের দাবি যে তাদের আয় 10 গুণ বেড়েছে আগের থেকে। ঋণ নিয়ে অনুদান দিলে কিভাবে উন্নয়ন হয় তার উত্তর নেই তাদের কাছে।

Advertisement

দুর্নীতির কথাও উঠে এসেছে। টাকা নিয়ে চাকরি দেওয়া হয়েছে। সকলকে আন্দোলনে আসার ডাক দিয়েছে উস্থি। বঞ্চিত হচ্ছে (WB DA News) আসলে রাজ্যের সবাই। সাধারণ মানুষের ভবিষ্যৎকে অন্ধকারে ঠেলে দিচ্ছে রাজ্য। ইউনিটি ফোরাম আদালত অবমাননা কেসও করেছে। এই অধিকার তারা আদায় করেই ছাড়বেন।

রাজনৈতিক দলগুলিকেও একসাথে আসার ডাক (WB DA News) দিয়েছেন। অরাজনৈতিক ভাবে সুসংবদ্ধ ভাবে আন্দোলন চলবে। এরপর জেলায় জেলায় আন্দোলন ছড়িয়ে দেওয়া হবে। পরবর্তীকালে কর্মবিরতির ডাক দেবার বিষয়েও তারা আলোচনা করেছেন। তবে সিদ্ধান্ত হলেই জানিয়ে দেবেন তারা।

1 সেপ্টেম্বর রাজ্য জুড়ে বিশেষ ছুটির ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী, কারা পাবেন?

এদিকে আজকের এই খবরে কার্যত এই ইস্যুটি আর সরকারী কর্মীদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই, পাব্লিক ইস্যু হয়ে আলোচিত হচ্ছে বাসে ট্রেনে, আর নিউজ চ্যানেলে। নিউজ চ্যানেলে সরকার দলের প্রতিনিধিদের (WB DA News) কাছে স্বদুত্তর নেই। যার জেরে আবার নতুন করে ভাবতে হচ্ছে সরকার কে। এবার দেখার আগামী ২৯ তারিখ আদালতে কি সিদ্ধান্ত হয়।

Advertisement

এমন সব আপডেট (WB DA News) পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন। আপনার মূল্যবান মতামত দিতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ। Written by Mukta Barai.

বিরাট ঘোষণা জিও এর, কবে আসছে 5G, দাম কত, পশ্চিমবঙ্গের কোন কোন শহরে প্রথম আসবে

Advertisement
Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement