আর হেয়ালি নয়, প্যান আধার লিংক না করলে এই 22 টি সরকারী সুবিধা পাবেন না।

প্যান আধার লিংক বা আধারের সাথে প্যান কার্ড লিঙ্ক করে নিন নাহলে এই ২০ টি কাজ করতে পারবেন না।
আয়কর দপ্তরের তরফে দেশবাসীকে নিজের আধার কার্ডের সাথে প্যান কার্ড আধার লিংক করতে বলে বহুবার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছিল। তবে দেশের অধিকাংশ মানুষ ই এখনও অবধি এই প্যান আধার লিংক করাননি। আয়কর দফতরের তরফে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি গুলিতে বিভিন্ন ডেডলাইন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই ডেডলাইন ও গ্রাহকদের ঔদাসীন্যের কারণে পিছিয়ে দিয়ে বাধ্য হয় সরকার। কিন্তু কার্যত দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে, এবার প্যান আধার লিংক না করলে সমস্যার সম্মুখীন তো হবেনই, তার সাথে বিভিন্ন সরকারী পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হবেন।

Advertisement

আয়কর দফতরের প্রকাশিত শেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০২২ সালের ৩১ শে মার্চের মধ্যে আধার কার্ডের সাথে প্যান কার্ড লিঙ্ক করাতেই হবে। সাথে বলা হয় এই সময়ের মধ্যে লিঙ্ক করাতে গেলে গ্রাহকদের লেট ফাইন হিসেবে ৫০০ টাকা জরিমানাও দিতে হবে। তবে যারা ৩১ শে মার্চ, ২০২২ তারিখের আগে লিঙ্ক করিয়েছেন, তাদের কোনো আবেদন মূল্য দিতে হয়নি। মূলত আয়কর রিটার্ন , বেনামি সম্পত্তি, ভুয়ো ট্যাক্স হোল্ডার ইত্যাদি বিষয়ে জনগণকে সুরক্ষা প্রদানের জন্যই প্যান কার্ডের সাথে আধার কার্ড লিংক করার ঘোষণা করেছিল আয়কর দপ্তর। 

Advertisement

তবে ৩১ মার্চ, ২০২২ তারিখের মধ্যেও বহু গ্রাহক প্যান আধার লিংক করেননি, তাই এই তারিখটি ফের পিছিয়ে ৩০ শে জুন ২০২২ করা হয়। জুন মাসের শেষে এই সময়সীমা আরও বাড়িয়ে ২০২৩ সালের ৩১ শে মার্চ অবধি করা হয়। এখন গ্রাহকদের আধার কার্ডের সাথে প্যান কার্ড লিংক করতে গেলে ১০০০ টাকা করে জরিমানা দিতে হচ্ছে।
চলতি বছরের মার্চ মাসের মধ্যেও যারা প্যান কার্ডের সাথে আধার কার্ড লিঙ্ক করবেন না, তাদের প্যান কার্ড অটোমেটিক বাতিল হয়ে যাবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফে। বাতিল হওয়া প্যান কার্ড সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করার জন্য পরবর্তীতে ১০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে গ্রাহকদের।

প্যান আধার লিংক না কলে কি হবে?

প্যান কার্ড বাতিল হলে যেসব অসুবিধের মধ্যে জনসাধারণকে পড়তে হবে, সেগুলি নীচে আলোচনা করা হল।
১. কোনরকম সঞ্চয় বা বিনিয়োগ করতে পারবেন না। সমস্ত সরকারী প্রকল্পের টাকা আটকে যাবে।
২. ভারতের যেকোনো ব্যাংকে কোন নতুন অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন না প্যান কার্ড ছাড়া।
৩. প্যান আধার লিংক না থাকলে মিউচুয়াল ফান্ডে কোন রকম বিনিয়োগ সম্ভব হবে না।
৪. ব্যাংকের পাসবুক আপডেট করা বা ব্যালেন্স চেক করা ইত্যাদির ক্ষেত্রেও অসুবিধেয় পড়তে হবে।
৫. কোনো ব্যাঙ্কে কোনো ফিক্সড ডিপোজিট করা থাকলে সেটি অকেজো হয়ে যাবে।

৬. প্যান আধার লিংক ছাড়া শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করা সম্ভব হবে না
৭. নিজের নামে কোনরকম ট্রাস্ট বা এনজিও রেজিস্টার করতে পারবেন না।
৮. সম্পত্তি কেনা অথবা বিক্রি করার ক্ষেত্রে প্রভূত সমস্যা হবে।
৯. নতুন করে ডিমাট একাউন্ট খুলতে পারবেন না।
১০. যারা বর্তমানে চাকরি করছেন ও পেনশন তুলছেন তাদের পেমেন্ট সংক্রান্ত সমস্যা হতে পারে।

Advertisement

১১. নতুন চাকরিতে যোগ দেবার ক্ষেত্রেও সমস্যার হতে পারে।
১২. সমস্ত রকম ইন্সুরেন্সের কাজে সমস্যা হবে।
১৩. নতুন গাড়ি বা দামি জিনিস কেনার জন্য লোন নিতে গেলে সমস্যা হবে।
১৪. পাশাপাশি, পুরনো গাড়ি বিক্রি করতে গেলেও সমস্যার মুখে পড়বেন। কারণ, আপনার আধার কার্ড এবং প্যান কার্ড একসাথে লিঙ্ক করা না থাকলে পুরনো গাড়ি বিক্রি করতে পারবেন না।
১৫. প্যান কার্ড ছাড়া নতুন ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন, পাঞ্জাব ন‍্যাশনাল ব্যাংকের গ্রাহকদের বড় ঝটকা, নতুন নিয়মে গ্রাহকদের কি প্রভাব পড়বে, জেনে নিন।

১৬. ব্যাঙ্কের ড্রাফট এবং চেক সংক্রান্ত যে কোনো কাজে অসুবিধে হবে।
১৭. একসাথে ৫০০০০ টাকার বেশি পেমেন্ট দিতে এবং নিতে পারবেন না।
১৮. ব্যাঙ্ক থেকে আর কোনরকম নতুন লোন নিতে পারবেন না।
১৯. প্যান আধার লিংক ছাড়া ব্যাংক ও বিভিন্ন আর্থিক সংস্থার কেওয়াইসি করতে সমস্যা হবে।
২০. কোনো অনলাইন অ্যাপের মাধ্যমে আর টাকা ট্রান্সফার করা যাবে না।

আরও পড়ুন, রেশন কার্ডে মাল তুলছেন তো, এই নতুন নিয়ম না জানলে হবে চরম ক্ষতি! বিস্তারিত দেখুন।

২১. অনলাইন জালিয়াতি হলে কিম্বা কোনও লেনদেন অসফল হলে ফেরত পাওয়া যাবে না।
২২. প্যান নম্বর বাতিল হলে ব্যাংকের গচ্ছিত টাকা তোলায় সমস্যা হবে।
সময়ের মধ্যে কার্ড দুটি অর্থাৎ প্যান আধার লিংক করিয়ে নিলে উপরের কোনো সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না আপনাকে। তাই ৩১ মার্চ, ২০২৩ তারিখের মধ্যে প্যানে কার্ডটি আধার কার্ডের সাথে লিঙ্ক করিয়ে নিন। এবং কয়েকদিন পর স্ট্যাটাস চেক করুন।
Written by Antara Banerjee.

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment