রাজ্যবাসীদের সুখবর, রেশন পরিষেবার সাথে চালু হচ্ছে ব্যাংকিং সিস্টেম কি কি সুবিধা পাবেন জেনে নিন।

রেশন পরিষেবা ব্যবস্থার মাধ্যমে রাজ্য জুড়ে বহু মানুষ উপকৃত হচ্ছে। নিয়মিত খাদ্যশস্য পাচ্ছেন নির্দিষ্ট মূল্যে বা বিনামূল্যে। রেশন কার্ডের ক্যাটাগরি অনুযায়ী খাদ্যশস্য সংগ্রহ করেন রেশন কার্ড হোল্ডাররা। জাতীয় খাদ্য নিরাপত্তা আইনের (NFSA) আওতায় দেশজুড়ে মানুষকে রেশন পরিষেবা ব্যবস্থায় নিয়ে আসা হয়েছে রেশনের মাধ্যমে খাদ্যশস্য দেওয়ার জন্য।

Advertisement

রেশন পরিষেবায় নতুন পরিকল্পনাঃ

সেখানে পশ্চিমবঙ্গ সরকার রাজ্যবাসীকে রেশন পরিষেবার মাধ্যমে খাদ্য নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বহু উপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যার মাধ্যমে একজন গ্রাহকও যাতে রেশনের খাদ্যশস্য পাওয়া থেকে বঞ্চিত না হন, সেই দিকে নজর দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। ইতিমধ্যেই দুয়ারে রেশন পরিষেবা (Duare Ration) চালু হয়েছে। পাড়ায় পাড়ায় রেশন ডিলার খাদ্যশস্য নিয়ে হাজির হচ্ছেন। মানুষ একেবারে দোরগোড়ায় থেকেই সেই খাদ্যশস্য সংগ্রহ করতে পারছেন।

Advertisement

এক শ্রেণীর রেশন ডিলাররা প্রথমে দুয়ারে রেশন দিতে রাজি হননি। তারপর আদালতের দ্বারস্থ হন। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ফের দুয়ারে রেশন পরিষেবা চলছে। রেশন ডিলাররা সরকারের সমস্ত নির্দেশ মেনেই সেই কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু রেশনের সামগ্রী দেওয়ার সময় একাধিকবার কারচুপির অভিযোগ শোনা গিয়েছে। রেশন ডিলারদের একাংশ এই ধরনের কারচুপি করে থাকে। তাই ইতিমধ্যেই আধার লিংক (Aadhaar Link) ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। আর এই আধার লিঙ্ক চালু করার পরে বহু রেশন কার্ড বাতিল হতেও দেখা গিয়েছে।

আরও পড়ুন, সাধারণ মানুষের স্বস্তির খবর, বাড়লো আধার লিঙ্কের সময়সীমা, সবাই এটাই চাইছিলো।

বেআইনিভাবে এইসব রেশন কার্ড থেকে নিয়মিত রেশন পরিষেবা নেওয়া তথা খাদ্যশস্য সংগ্রহ করা হতো। যার ফলে সরকারের লোকসান হত। আবার ন্যায্য উপভোক্তারা খাদ্য সামগ্রী থেকে বঞ্চিত হতেন। রেশন পরিষেবা ব্যবস্থায় সবথেকে বেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে বয়স্কদের। তার কারণ, বয়স্ক মানুষেরা শারীরিক অসুস্থতা এবং অন্যান্য প্রতিবন্ধকতার কারণে সব সময় রেশন ডিলারদের সামনে উপস্থিত হতে পারেন না। যার ফলে রেশনে সামগ্রী তুলতেও পারেন না। তাই বয়স্কদের দিকে নজর দিয়ে তাদের এই সমস্যা দূর করার জন্য রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। যে পদক্ষেপের মাধ্যমে বয়স্ক ব্যক্তিরা এবার থেকে নিশ্চিন্তে নিজেদের খাদ্য সামগ্রী পেয়ে যাবেন।

 কৃষক বন্ধুদের জন্য কুসুম সোলার পাম্প যোজনা, 90% টাকা দেবে সরকার, কিভাবে পাবেন?

রেশন পরিষেবায় সরকারের পদক্ষেপ কি?

পশ্চিমবঙ্গ খাদ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে ব্যাংকের মতো নমিনেশন পদ্ধতি চালু করা হয়েছে বয়স্কদের জন্য। বয়স্ক ব্যক্তিরা রেশনে খাদ্য সামগ্রী তোলার জন্য তার অনুমোদিত কোনো ব্যক্তিকে দায়িত্ব দিতে পারেন।
কি সুবিধা হবে?
এই নমিনেশন পদ্ধতির মাধ্যমে ওই বয়স্ক ব্যক্তি নিয়ম অনুযায়ী দুজন ব্যক্তিকেও মনোনীত করতে পারেন। নিজের পরিবারের সদস্য ছাড়াই এলাকার অন্য ব্যক্তিকেও মনোনীত করা যেতে পারে। এর ফলে বয়স্ক লোকেরা চাইলে নিজে না গিয়ে অন্যকে দিয়ে নিজের রেশন তুলে নিতে পারবেন।

Advertisement

কিভাবে চালু করবেন?
খুব সহজেই যেকোনো সিনিয়র সিটিজেন যেকোনো দুই ব্যাক্তিকে মনোনিত করতে পারেন। এই পরিষেবা পাওয়ার জন্য উপভোক্তাকে ফরম ১৫ (Form-15) পূরণ করতে হবে। এই ফর্ম খাদ্য দপ্তরের অফিসে পাওয়া যাবে। এছাড়াও https://food.wb.gov.in এই ওয়েবসাইটেও পাওয়া যাবে।
এই ফর্ম ডকুমেন্টস এর সাথে ফিলাপ করে জমা দিতে হবে।

কোন রোগের জন্য কোন হাসপাতাল (Top Hospitals in India)

রেশনে ডিলারদের কারচুপি ঠেকানোর জন্য বায়োমেট্রিক ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। উপযুক্ত গ্রাহক সেখানে গিয়ে আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে রেশনে খাদ্য সামগ্রী তুলতে পারেন। এর ফলে যেমন একদিকে কারচুপি রুখে দেওয়া সম্ভব হয়েছে, তেমনি ন‍্যায‍্য উপভোক্তা খাদ্য সামগ্রী পাচ্ছেন। সেই বিষয়টিও নিশ্চিত করা গিয়েছে। তবে এবার বয়স্কদের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে এই পদক্ষেপে যথেষ্ট উপকৃত হতে চলেছেন তারা।
Written by Rajib Ghosh.

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment