Advertisement
school opening wb
Advertisement

অবশেষে স্কুল খুলছে পশ্চিমবঙ্গে (School Opening West Bengal)। কিভাবে শুরু হবে, নির্দিষ্ট কিছু ক্লাস হবে, নাকি আগের মতনই নিয়মিত ক্লাস হবে, কি কি নিয়ম থাকছে, রইল বিস্তারিত বিবরণ।

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা মতো, ভাইফোঁটার পরদিন খুলবে স্কুল (যদি কোভিদ নিয়ন্ত্রনে থাকে)। আর সঙ্ক্রমণের গ্রাফ এখনো নিয়ন্ত্রনে। তাই সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে সেইমতে তোড়জোড় শুরু করেছে শিক্ষা দপ্তর। দীর্ঘদিন ধরে স্কুল বন্ধ থাকায়, স্কুলের আসবাবপত্র ঠিকঠাক আছে কিনা, প্রথমে সেই খবর নেয় শিক্ষাদপ্তর। শিক্ষকদের তা বাংলারশিক্ষা পোর্টালে (Banglarshiksha Portal) তথ্য, ও ছবি আপলোড করতে হয়। শুধু তাই নয় যদি কোনও রিপেয়ার এর প্রয়োজন হয় তার জন্য কত খরচ হবে সেটাও জানাতে হয়। এরপর সমস্ত পড়ুয়াদের স্কুল উনিফর্ম এর ছবি, ডিজাইন ও কোন স্কুলের কত সাইজ কত সেট করে লাগবে, সেই তথ্য জানতে চায়। প্রসঙ্গত প্রতি বছর দুই সেট স্কুল উনিফর্ম এর জন্য টাকা দেয় শিক্ষাদপ্তর। তবে এই পরিস্থিতিতে এবার সরকার নিজেই ড্রেস বানিয়ে তা পড়ুয়াদের সরাসরি স্কুলের মাধ্যমে দেবে।

এরপর নবম থেকে দ্বাদশ সমস্ত শ্রেণির পড়ুয়াদের আধার লিঙ্ক সঙ্ক্রান্ত অর্ডার দেয়। আর কোন কোন পড়ুয়াদের আধার নেই, তাদের নাম ও স্কুলে পাঠায়।যাদের আধার নেই তাদের ও আধার কার্ড করার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। অর্থাৎ স্কুল খোলার আগে যাবতীয় প্রস্তুতি সেরে নিচ্ছে শিক্ষা দপ্তর। এবার দেখে নেওয়া যাক কি কি সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

Advertisement

স্কুল খোলার আগে কমপক্ষে দশ দিন আগে স্কুল খোলার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে। এবং তারপর একাধিকবার স্কুল স্যানিটাইজ করা হবে। সংবাদসুত্রে জানা যাচ্ছে, প্রথমে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত ক্লাস শুরু হবে। ক্লাস হবে হাফ বেলা। এবং অর্ধেক পড়ুয়া নিয়ে। তবে কোনও ক্লাসে ৫০ এর নিচে পড়ুয়া থাকলে তাদের দুটো সেকশনে প্রতিদিনই ক্লাস হতে পারে। যেহেতু সমস্ত ক্লাস খুলছে না তাই শিক্ষক সঙ্কট হবার কথা নয়। প্রথম দুই সপ্তাহের রিপোর্ট দেখে বাকি ক্লাস খোলার চিন্তা নেওয়া হবে।

তবে স্কুলে কড়া বিধিনিষেধ মানতে হবে। যেমন স্কুলের গেটে কিম্বা সবাই দেখতে পারে এমন জায়গায় একটা বড় ফ্লেক্সে স্বাস্থ্যবিধি নিয়ম, কি করনীয় কি করনীয় নয়, প্রভৃতি লিখে রাখতে হবে। স্কুলে মাস্ক আনা বাধ্যতামুলক। মাস্ক ছাড়া স্কুলে ঢুকতে দেওয়া হবে না। কোনও পড়ুয়ার জ্বর সর্দি কাশি কিম্বা অন্য উপসর্গ থাকলে স্কুলে আশা যাবে না। স্কুলে সকলের জন্য স্যানিটাইজার রাখতে হবে। এছাড়াও জ্বর মাপার থার্মোমিটার প্রভৃতি রাখতে হবে। খাবার ও পানীয় জল নিয়ে বিধিনিষেধ থাকবে। তবে স্কুলে মিড ডে মিল রান্না ও স্কুলের থালায় খাওয়া প্রভৃতি নিয়ে ভাবাচ্ছে।

EK24 News

Advertisement
Advertisement
Advertisement
29 thoughts on “School Opening West Bengal – পশ্চিমবঙ্গে খুলছে স্কুল, কবে ও কিভাবে ?”
    1. বিভিন্ন কলেজে টিকাকরন হচ্ছে। খুব শীঘ্রই খোলার চিন্তাভাবনা করছে উচ্চ শিক্ষা দপ্তর।

      1. চাইলেই স্কুল খোলা যেতে পারে, প্রত্যেক পিতা মাতাই বাড়ির বাইরে যাচ্ছি…….সে কাজের জন্য বা খাদ্যের প্রয়োজনে বা লক্ষীভান্ডার ফর্ম জমা করার জন্য
        ..……….তাহলে স্কুল খোলার ব্যাপারে আপত্তি কিসের???????????

        1. সঠিক বলেছেন দারুণভাবে সমর্থনযোগ্য। এভাবে covid এর দোহাই দিয়ে কচি কাচা teenager students দের শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা সঠীক হবে না। তাই সংশ্লিষ্ট department কে ও মাননীয় CM কে সবিশেষ আবেদন এবার school খোলার সত্বর ব্যবস্থা করুন।

  1. যতদিন না সমস্ত পড়ুয়াদের টীকাকরণ সম্পূর্ন হচ্ছে ততদিন পর্য্যন্ত কোনো অবস্থাতেই স্কুল খোলা ঠিক হবেনা। আর ১৮ বছরের নিচের বাচ্চাদের এখনো তো টীকাই এলোনা বাজারে। এই অবস্থাতে স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণভাবে ভুল হবে।

      1. একেবারে ঠিক বলেছেন দাদা স্কুল education নিয়ে এরকম খামখেয়ালিপনা এই প্রথম দেখা গেল সবই বেলাগাম চলছে বাজার ঘাট দোকানপাট মিছিল মিটিং হোটেল রেস্তোরা সর্বত্র জনসমাগম কিন্তু স্কুল এর ক্ষেত্রে শুধুমাত্র covid এর দোহাই দিয়ে বেনজির ভাবে কি কেন্দ্র কি রাজ্য একই অবস্থা। যেনো স্কুল খুললেই সব teenagers students করোনা র বলি হবে। সত্যি কি আজব যুক্তি অথচ রিপোর্ট দেখলেই বুঝা যায় covid এ teenagers দের অ্যাক্রন্ত্র নগণ্য। তাই বলি এভাবে স্কুল education নিয়ে খেয়ালিপণা না করি অতি সত্বর covid বিধি মেনে school খোলা উচিত বলে মনে করি। তাই মাননীয় CM ও সংশ্লিষ্ট department এবার আর দেরি না করে seriously সব ধরনের স্কুল কলেজ খোলার ব্যবস্থা করুন।

  2. Advertisement
  3. Prathame College khola uchit, College pass karei sabai chakrir chesta kare, Sab student er vaccine diye kara bhabe Sab niyam mene college kholar darker, jar vaccine hoi ni se college e jabe na, Jor ba other asubidha thakle ,se college jabe na.

  4. Advertisement
  5. এভাবে আর কতো দিন ভয় পেয়ে ঘর বন্ধি করে আমরা বাচ্চাদের আটকে রাখতে পারতাম!! বাচ্চারা অনলাইন ক্লাস করছে ঠিকই.. কিন্তুু সমাজ,বন্ধু বান্ধব,নিয়ম শৃ্খলা সব থেকে দূরে ওরা এক অন্য জগতে বাস করছে.. না তো শরীরের চর্চা করছে না তো মানসিক চর্চা.. শুধুমাত্র পুঁথিগত শিক্ষা তে আবদ্ধ ওরা..জীবন থেকে প্রায় ২ বৎসর এভাবেই চলে গেলো আত্ম রক্ষায়.. এখন যদিও কিছুটা শাস্তি দিয়েছে আমাদের এই জীবাণু, তাই আমিও মনে করি একটু সতর্কতা অবলম্বন করে বাচ্চাগুলোকে আবার এই সুন্দর পৃথিবীতে ওদের মতো বাঁচতে দেওয়া উচিত.. ওদের জন্য “ওদের মন্দির” ওদের স্কুল খুলে দেওয়া উচিত..

    1. আপনার সব যুক্তি যথাযথ মেনে নিয়ে তবু ও বলতে বাধ্য হচ্ছি online class কি যথাযথ হচ্ছে? Online class থেকে কতজন যথার্থ শিক্ষা পেতে পারে? বেশিরভাগ কচি কাচা নাবালক students online class এতে সঠিক ভাবে মনোযোগী হতে পারে? শুধুমাত্র কিছু note suggestions দেওয়া হচ্ছে। Math, grammar যে বিষয় গুলো শিক্ষার মূল ভিত্তি সেইগুলো কি students ঠিকমতো আয়ত্ত করছে? আমি শিক্ষকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত তাই এসব অনুভব করে বলতে বাধ্য হচ্ছি online শিক্ষা ব্যবস্থা শুধুমাত্র note suggestions ছাড়া আর কিছুই নয়। বেশিরভাগ students এই ব্যবস্থার মাধ্যমে তেমন কিছুই শিখছে না তারা যেটুকু শিখছে শুধুমাত্র private tutor এর মাধ্যমে। তাই বলি স্কুল শিক্ষার মূল ভিত্তি শুধুমাত্র স্কুলেতেই সম্ভব।

  6. স্কুল এবার খোলা উচিত। এভাবে আর কতদিন চলতে পারে? আমরা স্কুলে শুধুমাত্র পুস্তক নির্ভর শিক্ষালাভ করতে যাই না। স্কুলে সামাজিক ও মানসিক মূল্যবোধ গড়ে ওঠে। যদিও অনলাইন পড়াশুনো চলছে। কিন্তু এতে কি সার্বিক উন্নতি সম্ভব? এই প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে। অনলাইনে পড়াশুনো তারাই করতে পারছে যাদের কাছে স্মার্ট ফোন আছে। যে সকল ছাত্রছাত্রী দারিদ্র্যসীমার নীচে , যাদের দৈনিক সংসার চালানো সম্ভব নয়, তাদের পক্ষে স্মার্ট ফোন কেনা সম্ভব কি? তাহলে এটাই ফলাফল হিসাবে দেখা যাচ্ছে এক শ্রেণীর ছাত্রছাত্রী পড়াশুনা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সমাজ তখনই উন্নত হয় যেখানে সার্বিক অবস্থার উন্নতি, কিন্তু যে পদ্ধতিতে পড়াশুনো চলছে তাতে সমাজের সার্বিক উন্নতি সম্ভব নয়। তাহলে একটাই পথ তাহলো স্কুল সকলের জন্য খুলে দেওয়া। অনলাইনে পড়াশুনায় ছাত্রছাত্রীদের মন কিত্রিম হয় পড়ছে। ছাত্রেছাত্রীদের মধ্যে ভাতৃত্ববোধ ও বন্ধুত্বের সম্পর্কগুলো যেনো কোথাও হারিয়ে যাচ্ছে। আমরা স্কুলে যে সকল অতিরিক্ত শিক্ষামূলক কাজে যোগদান করি, তাতে আমরা নেতৃত্বদানের ভূমিকা সম্পর্কে অবগত হয়। কিন্তু স্কুল না খুললে আমার সমাজকে নেতৃত্ব দিতে ভুলে যাবো। এমনটা যেনো না হয় যে করোনা কারণে স্কুল বন্ধ রেখে আমরা কোনো এক অদৃশ্য অশুভ শক্তিকে আমন্ত্রন জানাচ্ছি না তো , যা ধীরেধীরে আমাদের সমাজ, শিক্ষা ও মনুষ্যত্বকে গ্রাস করে ফেলবে। আর সেদিন আমাদের আর কিছু করার থাকবে না । তাই আমার এটাই মত স্কুল খুলে দেওয়া।
    ইতি
    নবীন পাখিরা।

  7. Advertisement
  8. Thanks school 🏫 খোলার জন্য অনেক স্কুল আছে যেগুলো বেসরকারি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল সে গুলো ও খোলার নির্দেশ দিলে ভালো হতো।
    প্রিয়,
    মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমি অরবিন্দু রায়, দয়া করে একটু সয়াওতা করবেন আমাদের এই বাংলা কে খুব তারা তারি নিতে হবে ব্যাবস্থা অনেক ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল আছে যেগুলো বেসরকারি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল children school service ভালো দেয় সেগুলো নিয়ে ভাবলে ভালো হতো mam please help

  9. এবছর কিছু করার দরকার নেই !
    কারণ ভ্যাকসিন নিয়েও অনেকে মারা যাচ্ছে ! এছাড়া কিছু ক্লাস অনলাইন করে বাকি একমাস অফলাইন করে , পরীক্ষা দেওয়া সোজা না !

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement