Advertisement
school college reopen news
Advertisement

করোনাকালে স্কুল কবে খুলবে, এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন, ( School Opening West Bengal News ). অতিমারীর ছোঁয়া যাতে শিশুদের না লাগে তারজন্যই বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি। যদিও এখন করোনার প্রকোপ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। তবুও রাজ্যের স্কুল-কলেজগুলির পঠন-পাঠন বন্ধ রয়েছে। ইতিমধ্যেই পড়ুয়াদের এবং অভিভাবকদের মধ্যে প্রশ্ন উঠছে পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হওয়া সত্বেও কেন স্কুল এবং কলেজ খুলছে না তা নিয়ে! স্কুল খুললে একদিকে যেমন পড়ুয়াদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, অন্যদিকে স্কুল না খুললে পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ ও খারাপ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এই উভয় সঙ্কটের পরিস্থিতিতে যথেষ্ট চাপে প্রশাসন থেকে শিক্ষাদপ্তর। এই পরিস্থিতিতে আজ কি বললেন শিক্ষামন্ত্রী, রইলো বিস্তারিত বিবরণ।

Advertisement

গতকাল শিক্ষামন্ত্রী বলেন, রাজ্যের জন্য কেন্দ্র যে হারে করোনা ভ্যাকসিন পাঠাবে, সেই ভাবেই ছাত্রছাত্রীদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। এবং সকলকে ভ্যাকসিন দিয়েই স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় খােলা হবে বলে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু শুক্রবার জানিয়ে দিয়েছেন (School college Opening West Bengal News)।

শিক্ষামন্ত্রী এদিন বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরামর্শক্রমে ধাপে ধাপে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। এর পরেও কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছু ছাত্রছাত্রীর ভ্যাকসিন নেওয়া বাকি থেকে গেলে অবশ্যই আমরা তাঁদেরও ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করব। ইতিমধ্যেই স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষিকা ও শিক্ষাকর্মীদের ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শেষ হয়েছে। স্কুলের পড়ুয়াদেরও ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। তবে যেহেতু স্কুল পড়ুয়াদের বয়স ১৮ বছরের নিচে, তাই গাইডলাইন না প্রকাশ হলে তাদের এখনো ভ্যাক্সিন দেওয়া যাচ্ছে না, তবে তালিকা প্রস্তুত আছে, সবুজ সঙ্কেত মিললেই ভ্যাক্সিন দেওয়া হবে।

Advertisement

অন্যদিকে, যাদবপুর সহ পশ্চিমবঙ্গের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠনগুলি আন্দোলনে বুধবার নবান্ন অভিযানের পর সোমবার বিকাশ ভবন অভিযানের ডাক দেওয়া হয়েছে। সেই প্রসঙ্গেও মুখ খুললেন ব্রাত্য বসু। শিক্ষামন্ত্রী এই প্রসঙ্গে বলেন, ওদের জেনে রাখা প্রয়ােজন, করোনায় ৪০০ পড়ুয়া আক্রান্ত হওয়ার কারনে কেরলের স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্ট কালের জন্য বা রাখা হয়েছে। কেরল সরকারের শিক্ষামন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, করােনা পরিস্থিতি সম্পূর্ণ পর্যালােচনা করে তার পরে ক্যাম্পাস খোলার কথা ভাবা হবে। এই সরকারি সিদ্ধান্তকে কে ডান ও বাম সব ছাত্ৰ সংগঠনই স্বাগত জানিয়েছে। (School college Opening West Bengal News)

এদিকে স্কুল কলেজ বন্ধ রেখে অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে বৃহত্তর জনমত গড়ে তুলছে Students Unity Forum. অনলাইনে পিটিশন সাইন করছেন তারা, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার পড়ুয়া ও অভিবাবক তাতে সাইন করছেন.

EK24 News
Advertisement
Advertisement
52 thoughts on ““কবে খুলবে স্কুল কলেজ” এইমাত্র শিক্ষা মন্ত্রীর বড় ঘোষণা – School college Opening West Bengal News”
  1. আমার মতে স্কুল কলেজ না খুলে পুরোটা অনলাইন exam নেয়া উচিত। আমি 12 র এক student r বাবা হয়ে বলছি অনলাইন exam e বেস্ট পন্থা। আমার ছেলে 17 year r। Ekhon jodi or kichu hoye jay, amra ki korbo।

        1. Age jeta bol6en seta thik kore bolte sikhun….
          Ar school/college kholar kotha bol6en akhon jodi school college khole students to ar ak jaygar na tai tader ke atke rakha sobar khetre somvob na tokhon jodi students and Teachers sobai problem a pore jay sikha to durer kotha bachte parbe ki…?

      1. A6i please don’t mined covid bara ga6i . Tv ta bar bar bol6i . Tv ta dakhun bari ta . Ok apney akta gargen hoa are akta gargen key bolta paren na ok . News ta dakhun . Apner Chala Jodi school ba college gia Jodi kit6o hoy tar var kintu probation nabe na . Amer personal mot ja January ta open kora uchit.

      2. সেটা ওনার সিদ্ধান্ত। আপনাকে বলে নি পরামর্শ দিতে

      1. Schools & colleges should be opened as soon as possible for building up their best future . Madhyamik & Higher Secondary exams will be taken through their home centres as per scheduled time .

    1. Oto bhoy pele cholbe na…already oder future doom hoye geche, boro company gulo declare koreche covid year e jara pass korbe tader interview te daka hobe na…sutorang sabdhanota obolombon kore full vaccinated hoye student der school e asha uchit…nahole future doomed hote choleche….

    2. আর আপনার ছেলে যে দেখে দেখে পরীক্ষা দিয়ে অশিক্ষিত তৈরী হবে সে কথা একবার ও ভেবেছেন? না অবশ্যই বাবা হিসেবে আপনার মনে হতেই পারে কিন্তু আপনি ছেলের কথা বলতে গিয়ে অশিক্ষিত করে তুলবেন তাকে! আমার মনে হয় করোনা গাইডলাইন মেনে এবার স্কুল কলেজ খোলা দরকার । অন্তত শিক্ষিত হোক আর এরকম মানসিকতা দুর হোক। কিছু মনে করবেন না।
      ইতি
      স্নেহা মুখার্জী
      তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী,

  2. স্কুল খোলার আগে টিকাকরণ বাধ্যতামূলক হওয়া চাই। শিক্ষার্থীদের জীবন যাতে ঝুঁকির মধ্যে না পড়ে তা নিশ্চিত করতে হবে। দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকলে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ ও নষ্ট হবে। তাই টিকাকরণ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা দ্রুত করতে হবে।

  3. Advertisement
  4. করণা পরিস্থিতিতে স্বাভাবিক হলেও বন্ধ রাখতে হবে স্কুল কলেজ

    1. কারণ স্কুল কলেজ খুলে পড়ুয়াদের করণা আক্রান্তের সম্ভাবনা রয়েছে তাই বিনীত অনুরোধ যে স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখা হোক

      1. আমার মনে হয় ছাত্র ছাত্রীদের ভবিষ্যত নিয়ে আপনার কোনো মাথান্যাথা নেই, তাই একথা বলছেন, সামনে পূজো আসছে, আপনি আপনার সন্তানকে ঘরে বন্দি করে রাখবেন তো? তাকে বলবেন কোথাও যাবে না, ঘরে বসে টিভিতে দূর্গাপুজো দেখো,
        সে মানবে তো?
        তাকে দোকান, বাজার কোথাও পাঠান না তো?
        কোনো আত্মীয় বাড়ি বা কোথাও বেড়াতে নিয়ে যান না তো?

        1. আগে বলুন ছাত্র-ছাত্রীদের জীবন বড় না শিক্ষা বড় ধরুন আপনার ছেলেই করনা আক্রান্ত হয়ে গেল জীবন নিয়ে টানাটানি পরে গেল তখন কোনটা বেছে নেবেন ছেলের জীবন না শিক্ষা করণা এখনো স্বাভাবিক হয়নি তাই আমার বিনীত অনুরোধ যে স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখা হোক অনলাইন এক্সাম অনলাইন ক্লাস হোক

    2. No….baire berole oder mental illness theke mukto hobe….bari theke theke oder school going habit nosto hoye jachche….protection niye, double vaccine niye school e asha uchit….

      1. আগে বলুন ছাত্র-ছাত্রীদের জীবন বড় না শিক্ষা বড় ধরুন আপনার ছেলেই করনা আক্রান্ত হয়ে গেল জীবন নিয়ে টানাটানি পরে গেল তখনকোনটা বেছে নেবেন ছেলের জীবন না শিক্ষা করণা এখনো স্বাভাবিক হয়নি তাই আমার বিনীত অনুরোধ যে স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখা হোক অনলাইন অনলাইন এক্সাম অনলাইন ক্লাস হোক

  5. I want online study for the situation of covid19 . Because life is more important than study always mind it.

  6. Advertisement
  7. School and college and university March month e open kora dawa hok.
    Because online class kore online e syllabus complete kore online examination howa ta ekta impossible baper hoye jay …….Tai ekhhon online class and online examination e chholuk….. Kichu din pore abar sob start kore dawa hok…

    1. Govt. School e niddisto routine mene sara dine (working day gulote) atleast 4 te kore class holeo student der onek upokar hobe ..

      1. আমার মনে হয় যে ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে জানা দরকার তারা কতটা করোনা থেকে সুরক্ষিত আছে এবং অনলাইনে পড়াশোনা করলে মানসিক দিক থেকে কতটা ভালো আছে আর আগামী ভবিষ্যতটা তাদের কি হতে পারে!এটা জানা খুবই দরকার আছে বলে,আমি একজন ছাত্রের বাবা হিসাবে মনে করি।সেটা জেনেই সঠিক সিধ্যান্ত নিলে ভালো হয়।

        1. আমার মনে হয় ছাত্র ছাত্রীদের ভবিষ্যত নিয়ে আপনার কোনো মাথান্যাথা নেই, তাই একথা বলছেন, সামনে পূজো আসছে, আপনি আপনার সন্তানকে ঘরে বন্দি করে রাখবেন তো? তাকে বলবেন কোথাও যাবে না, ঘরে বসে টিভিতে দূর্গাপুজো দেখো,
          সে মানবে তো?
          তাকে দোকান, বাজার কোথাও পাঠান না তো?
          কোনো আত্মীয় বাড়ি বা কোথাও বেড়াতে নিয়ে যান না তো?

    2. হ্যাঁ এটা একদম ঠিক কারণ সমস্ত পড়ুয়ারা অনলাইনে পড়াশোনা করেছে অতএব তাদের অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া উচিত। কারণ অফলাইনের পড়াশোনা আরো অনলাইনে পড়াশোনা অনেক পার্থক্য আছে। তাই আমার ক্ষেত্রে মনে হয় এবং আমার মনে হয় সবার ক্ষেত্রেই এটা ভাল হবে।

  8. Schools and colleges may remain closed for Covid 19. But exams must be taken offline. Even the worst students are passing and the best students are becoming worst.

  9. Advertisement
  10. Advertisement
  11. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললে করোনা হবে, বাকি আর সব খোলা রয়েছে, তাতে কোনো সমস্যা নেই। তাহলে ছাত্র – ছাত্রীরা কি বাড়িতে বসে আছে। পূজা , বাজার, শপিং হল , সিনেমা , মদ দোকানসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা নেই,
    আদৌ কি এখন করোনা নিয়ে আমরা চিন্তিত।
    ক্লাস নাইন থেকে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললে কোনো সমস্যা হবে না, কনরণা বিধি মেনে। সকারের উদাসীনতার কারণে ভবিষ্যত প্রজন্ম ধ্বংসের মুখে। রাজনীতি নিয়ে সবাই ব্যস্ত। ভোটের সময় করোনা হয় না, মানুষের জীবন এখন পশুর থেকে খারাপ ।

    1. Bari ta tv ta valo kora dekben covid ta onake bara6i . So panick na kora ta uchit . Government thick decetion nia6i vacation dia college open kora uchit January ta open kora uchit

  12. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে বাকি সব খোলা হলেও করোনা ছড়াবে না। কি আজব চিন্তা তাই না? আর যেসকল তথাকথিত ছাত্র-ছাত্রিরা এই অজুহাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে অনলাইন ব্যবস্থাকে অকারণে স্বাগত জানাচ্ছে, তাদের ধিক্কার। আর সাথে জুটেছে অধিক জ্ঞানী কিছু অভিভাবক। অযাচিত উপদেশে ভরিয়ে দিচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা কতটা জরুরি, সে বিষয়ে তাদের জ্ঞান থাকলে, তারাও উদ্ধার হয়ে যেত। এমন ভাব যেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললেই করোনা ঘাড় মটকে দেবে। তা শপিং মল, সিনেমা হল, বাজার, দোকান, ঘুরতে যাওয়া, খেলতে যাওয়ার কালে করোনা ছড়ায় না?

    1. একদম সত্যিই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি খুললেই কি কোরনা মহামারী চলে আসে

  13. আমার মনে হয় যে ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে জানা দরকার তারা কতটা করোনা থেকে সুরক্ষিত আছে এবং অনলাইনে পড়াশোনা করলে মানসিক দিক থেকে কতটা ভালো আছে আর আগামী ভবিষ্যতটা তাদের কি হতে পারে!এটা জানা খুবই দরকার আছে বলে,আমি একজন ছাত্রের বাবা হিসাবে মনে করি।সেটা জেনেই সঠিক সিধ্যান্ত নিলে ভালো হয়।

  14. Advertisement
  15. এবার স্কুল খোলা উচিত।গ্রামের স্টুডেন্টদের অবস্থা অত্যন্ত খারাপ;কারন এদের অনলাইন নেই,অফলাইন টুকুই ভরসা।বাড়িতে বাবা-মাও একটু দেখাতে পারেনা।privat tuitor ও দেওয়ার সামর্থ্য নেই।হ্যাঁ, অবশ্যই টিকা দিতে হবে।

  16. Students should be vaccinated systematically in the campus or school premise of the concerned school/ college with the guidence of govt. It is difficult for all parents equally capable to vaccinate their wards at the proper time. Govt. Should guide the School/college managent in this regard.

  17. Advertisement
  18. যারা বলছেন স্কুল কলেজ বন্ধ রেখে অনলাইন পড়াশোনা ও পরীক্ষার ব্যবস্থা করা দরকার, তারা একবারও কি ভেবেছেন যে বিপুল পরিমাণ ছাত্রছাত্রীরা মোবাইল ও নেট পরিষেবার অভাবে দেশের প্রত্যন্ত প্রান্তে অনলাইন পড়াশোনার সুযোগ পাচ্ছে না তারা কি করবে? অনলাইন পড়াশোনা মূলত শহরকেন্দ্রিক, গ্রামেগঞ্জে স্টুডেন্টদের বেশ দুরবস্থা। একজন শিক্ষক শিক্ষণ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ হিসাবে এই দেড় বছরে আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা হল অনলাইন ব্যবস্থাতে ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস বিমুখতা অফলাইন ব্যবস্থার থেকেও বেশী। এতে তাদের নানা অজুহাত শুনতে শুনতে আমরা পাগল হয়ে যাচ্ছি! সর্বোপরি অনলাইন পরীক্ষা ব্যবস্থায় একজন ছাত্র যখন দেখে দেখে লিখছে এবং বেশী বেশী নম্বর পাচ্ছে, কেউ বলুন তো এমন মূল্যায়নের আদৌ কোনও মূল্য রয়েছে কি? তাছাড়া যারা অনলাইন ব্যবস্থাকে স্বাগত জানাচ্ছেন তারা শিক্ষক সম্প্রদায়কে দু বেলা গালাগাল দিচ্ছেন না তো তাদের বাড়ী বসে মাইনে পাওয়া নিয়ে! এমন অভিভাবকবৃন্দের কাছে আমার আরও একটি প্রশ্ন আছে। আপনাদের ছেলেমেয়েরা এই সম্পূর্ণ করোনা কালে বাড়ি থেকে কোনো অজুহাতে কখনোই কোথাও বের হয়নি তো? পার্কে, সিনেমায়, হোটেল রেস্টুরেন্ট, আত্মীয় বাড়ি, শপিং মল, পূজা প্যান্ডেল, বাসে ট্রেনে ট্রামে, বন্ধুর বাড়ি, হাসপাতাল, ডাক্তারখানা কোথাও গেলে করোনা ছড়াচ্ছে না, শুধু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই যত করোনা ছড়াতে পারে তাই না? একবারও কি ভেবেছেন এই ভাবে পরীক্ষা দেওয়া কার্যত কিছুই না শেখা ছাত্র-ছাত্রীদের ভবিষ্যৎটা কি হবে! যুক্তিনিষ্ঠ হয়ে ভাবুন, আর ওদের ভবিষ্যৎকে প্লিজ তলিয়ে যেতে দেবেন না। লকডাউন থেকে যখন ধীরে ধীরে দেশ স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে শুরু করেছে তখন শুধুমাত্র মহামারী ছড়িয়ে পড়বে বলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এভাবে একতরফা বন্ধ রাখা যায় কি! জীবন তো কোনভাবেই থেমে নেই তাই না!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement