Advertisement
RBI new rules to stop inflation
Advertisement

দিপাবলীর দিন রিজার্ভ ব্যাংক তথা RBI এর জরুরী ঘোষণা। যার জেরে প্রভাবিত হতে পারেন আপনিও। প্রভাব পরতে পারে সারা দেশের অর্থনীতিতে। কি কি বদল হতে চলেছে জেনে নিন।

Advertisement

দেশজুড়ে লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি। দিনের পর দিন ধারাবাহিকভাবে বেড়েই চলেছে। সাধারণ মানুষ যারপরনাই অতিষ্ঠ। বাজারে জিনিসে হাত দিতে গেলেই ছ্যাকা লাগছে। চড়চড়িয়ে বাড়ছে দাম। কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় না কেন্দ্রীয় সরকারকে। কিভাবে দৈনন্দিন জীবনযাপন করবেন সাধারন মানুষ, ভেবে উঠতে পারছেন না। দেশজুড়ে ধারাবাহিক মুদ্রাস্ফীতির কারণেই এই পরিস্থিতি শুরু হয়ে গিয়েছে।

আগামী দিনে যাতে দেশের অর্থনীতিতে এই মুদ্রাস্ফীতির কারণে বিরাট ধাক্কা না লাগে, সেই দিকে নজর রেখে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (RBI) যদিও বিশ্বজুড়ে আর্থিক মন্দা চলছে। তবুও দেশের অর্থনীতিতে ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতির কারণে সাধারণ মানুষের জীবন যাপন সমস্যার সম্মুখীন।

Advertisement

RBI এর ঘোষনাঃ

এই মুহূর্তে মুদ্রাস্ফীতিকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে RBI 17 অক্টোবর আর বি আই এর বুলেটিনে জানানো হয়েছে, মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য এই বছরে ৪ বার রেপোরেট বাড়িয়েছে আর বি আই। মুদ্রানীতিতে এবার সবচেয়ে বেশি ফোকাস থাকবে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করা।

RBI Bulletin এ State of the Economy প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের জন্য RBI এর পদক্ষেপের প্রভাব পেতে বেশ কিছুটা সময় লেগে যেতে পারে। পরপর একটানা তিন ত্রৈমাসিকে রিটেইল মুদ্রাস্ফীতি আর বি আই এর লক্ষ্যের উপরে থাকায় দায়িত্ব নির্ধারণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আগামী দিনে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আরবিআই আরো বেশ কিছু ব্যবস্থা নিতে চলেছে।

EK24 News

SBI গ্রাহকদের জন্য সুখবর, বাড়লো সুদের হার, কোথায় টাকা রাখলে লাভ বেশি।

Reserve Bank of India Bulletin এ আরো বলা হয়েছে, দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থার উপরে মহামারীর সঙ্গে বিশ্ব অর্থনীতির প্রভাব পড়েছে। ফলে এই মুদ্রাস্ফীতি বেড়েই চলেছে। রিজার্ভ ব্যাংক মনে করছে, ২০২২- ২৩ সালের শেষ দিকে মুদ্রাস্ফীতি ৬.৭ শতাংশে নেমে আসতে পারে। যদিও তা সাময়িক বলে সাফাই রিজার্ভ ব্যাংকের।

Advertisement

রিজার্ভ ব্যাংক জানিয়েছে, আবার ২০২৪ সালের মধ্যে দেশজুড়ে ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আসবে। সেই সময় দেখা যাবে ৫ শতাংশে নেমে গিয়েছে। পাশাপাশি আগামী দিনে এই মুদ্রাস্ফীতি ৪ শতাংশেও নামতে পারে বলে মনে করছেন রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার গভর্নর শক্তিকান্ত দাস।

দেশের সবচেয়ে লাভজনক স্কীম, এখানে টাকা রেখেছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও।

রিজার্ভ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এবং মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য মাইকেল পাত্র এই রিপোর্ট তৈরি করেছেন। আগামী আর্থিক বছরে দেশে মূল্যবৃদ্ধি কিরকম পরিস্থিতিতে থাকবে, সেই বিষয়ে বিস্তারিত মতামত জানানো হয়েছে RBI- এর তরফে।
Written by Rajib Ghosh.

Advertisement
Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement