Primary TET 2014 Update – প্রাইমারী টেট সংক্রান্ত হাই ভোল্টেজ মামলায় অবশেষে প্যানেল প্রকাশ করলো পর্ষদ, এবার সব কিছু পরিষ্কার হবে।

Primary TET 2014 Update – প্রাথমিক টেট নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে রাজ্যের কি বক্তব্য তা জানা গেলো, তবে কি তদন্ত নয়া মোড় নেবে? প্রকাশিত হল সম্পূর্ণ প্যানেল।

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগে (Primary TET 2014) একাধিক অনিয়মের ফলে কলকাতা হাইকোর্টে এ সংক্রান্ত মামলা দায়ের করা হয়। সম্প্রতি আদালতের নির্দেশে বরখাস্ত করা হয়েছে ২৬৯ প্রাথমিক শিক্ষককে। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের অধীনে চলা এই মামলার রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে রাজ্য সরকার ও প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ বিচারপতি সুব্রত তালুকদার ও লপিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে যায়। তবে আবারও এই মামলা সম্পর্কে নতুন তথ্য জানা গেল।

Advertisement

এই মামলা সম্পর্কে বরাবরই ভিন্ন মনোভাব পোষন করেছিলো রাজ্য। আর তাই বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এর মামলার রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বিচারপতি সুব্রত তালুকদার এবং লোপিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে যায় রাজ্য সরকার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। এই মামলা (Primary TET 2014) নিয়ে রাজ্যের কি বক্তব্য? তা জানা গেল।

Advertisement

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ২০১৪ টেট থেকে একটি অতিরিক্ত প্যানেল প্রকাশ (Primary TET 2014) করা হয়েছিল। কিন্তু সেই প্যানেল প্রকাশের ক্ষেত্রে কিছু ভুল হতে পারে, কিন্তু কোনও ভাবেই সমগ্র শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতি হয়নি এমনটাই মনে করে রাজ্য।

WBPSC এর মাধ্যমে একাধিক শূন্যপদে কর্মী নিয়োগ, অনলাইনে করুন আবেদন।

প্রসঙ্গত, গতকাল প্রাথমিক নিয়োগে দুর্নীতি সংক্রান্ত মামলার শুনানি নিয়ে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল (এজি) সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় জানান, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে, কিন্তু ৪ বছর পর্যন্ত কোনও অভিযোগ ওঠেনি। যদিও ২৭৩ জনের যে অতিরিক্ত তালিকা প্রকাশ (Primary TET 2014) করা হয়েছিল, সেটি ভুলবশত হতে পারে। তাছাড়া কোনো বেনিয়ম হয়নি। এ নিয়ে তিনি প্রশ্ন করেন? অপরাধের প্রশ্ন উঠছে কেন? তাছাড়া গোটা প্যানেল নিয়ে বা কেন প্রশ্ন উঠছে?

Advertisement

তাছাড়া এজি সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় ও বলেন, আইনে অতিরিক্ত প্যানেল তৈরির সংস্থান রয়েছে। প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ (Primary TET 2014) দুর্নীতির ক্ষেত্রে আদালতের নির্দেশে ছয় সদস্যের সিবিআই আধিকারিকদের নিয়ে তদন্তের জন্য গঠন করা হয়েছে সিট। কিন্তু আদালত মাত্র একদিনের শুনানির ভিত্তিতে কীভাবে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিতে পারে? তা নিয়েও প্রশ্ন করেন।

নবম-দশমে শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত মামলা নিয়ে কি জানা গেলো?
সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, রাজ্য শিক্ষাদপ্তরের প্রধান সচিব মনীশ জৈনকে নবম-দশমে শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতির মামলার কারণে তলব করে সিবিআই। সেইমতো গতকাল সিবিআই দপ্তরে হাজিরাও দিতে হয়েছিল তাকে।

এদিন স্কুল সার্ভিস কমিশন নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগের সংশোধিত মেধা তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশে ১৫ জুলাই মেধা তালিকা প্রকাশের যে সময়সীমা ছিল, তার আগেই তালিকা প্রকাশ করা হল। আগামী ২০ জুলাই এই মামলার পরবর্তী শুনানি।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার বিচারপতি সুব্রত তালুকদার এবং লপিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়, আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে আদালতে সিবিআইকে প্রাথমিক টেট নিয়োগ দুর্নীতি মামলা সংক্রান্ত তদন্তের অগ্রগতির রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

আশা করা যাচ্ছে, এই মামলায় (Primary TET 2014) স্বস্তিতে থাকবেন ২০১৭-২০১৯ এর নিযুক্ত প্রাথমিক শিক্ষকেরা। এই প্রসঙ্গে আপনার মতামত নিচে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। এই সংক্রান্ত অন্যান্য খবরের আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবসাইটটি ফলো করতে ভুলবেন না।
Written by Manika Basak.

পুজোর আগেই ডিএ পাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারী কর্মীরা, প্রস্তাবিত ড্রাফট রেডি।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment