Advertisement
Post Office Scheme Kisan Vikas Patra
Advertisement

মাত্র 1000 টাকা থেকেই বিনিয়োগ শুরু। নির্দিষ্ট সময়ে হবে দ্বিগুণ (Post Office Scheme).

ভারতীয় পোস্ট অফিস সবসময়ই সাধারণ মানুষের জন্য অনেক ধরণের সঞ্চয়ই প্ল্যান (Post Office Scheme) নিয়ে আসে। আজকে যে বিষয়ে আলোচনা করা হবে বর্তমানে বেশি সুদ দেওয়া সবচেয়ে জনপ্রিয় স্কীমের ব্যাপারে। যেখানে আপনি মাত্র কয়েক মাসেই টাকা ডবল করতে পারবেন।

Advertisement

প্রকল্পের নামঃ
এই প্রকল্পের নাম হলো কিষান বিকাশ পত্র (Post Office Scheme). যদিও এই প্লান টি কৃষকদের নামে নামাঙ্কিত কিন্তু এই প্ল্যান এ ভারতের সকল নাগরিকই নিজের অর্থ বিনিয়োগ করতে পারবে। তবে আগের প্রকল্পের সাথে বর্তমানের প্রকল্পে কিছু পরিবরতন করা হয়েছে। তাই পুরোটা জেনে নিন।

বিনিয়োগ করা অর্থের পরিমান কত?
আপনি সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা থেকে নিজের বিনিয়োগ (কিষান বিকাশ পত্র) শুরু করতে পারেন। এই প্রকল্পে বিনিয়োগের কোনো উর্দ্ধসীমা নেই। অর্থাৎ আপনি যত খুশি অর্থের বিনিয়োগ এখানে করতে পারেন তবে সে ক্ষেত্রে কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। আপনি যদি ৫০,০০০ টাকার বেশি অংক জমা করতে চান তাহলে আপনাকে নিজের প্যান কার্ডের ডিটেলস জমা দিতে হবে। আর ১০ লক্ষ টাকার বেশি বিনিয়োগ করতে হলে আপনাকে আয়ের ব্যাপারে জানাতে হবে।

Advertisement

কত বয়সে আপনি একাউন্ট খোলার যোগ্য হবেন? ন্যূনতম ১৮ বছর বয়স হলেই যে কেউ এই অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে। এছাড়া এই স্কিমে (Post Office Scheme) বয়সের কোনো ঊর্ধ্বসীমা রাখা হয়নি। সন্তান প্রাপ্ত বয়েসের না হলেও অভিভাবকেরা অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে। এবং সন্তার প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পর সে টাকা তুলতে পারবে।

এই স্কিমে সুদের কেমন হয়?
কিষান বিকাশ পত্র নামক স্কিমে এর অধীনে আপনি নিজের আমানতের ওপর ৬.৯ শতাংশ সুদ পাওয়া যায়। নিজের জমা দেওয়া টাকা ১০ বছর ৪ মাসের মধ্যে দ্বিগুণ হবে। এই সুদের হার অন্যান্য স্কীম থেকে তুলনামূলক ভাবে বেশি।

EK24 News

কত সময় লাগবে টাকা দ্বিগুণ হতে?
এখানে ৬.৯ শতাংশ সুদ পাওয়া যায়। সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা বিনিয়োগ করতে পারেন আপনি। এখানে আপনার বিনিয়োগের পরিমান ১২৪ মাস বা ১০ বছর ৪ মাসে দ্বিগুণ হয়ে যায়।

Advertisement

 বন্ধন ব্যাংক বা যেকোনো ব্যাংকে লোন আছে? সুখবর, কিস্তির জন্য জোরাজুরি করা যাবে না।

বিনিয়োগের জন্য অ্যাকাউন্ট কোথায় খোলা হয়?
১০ বছর উত্তীর্ণ হলে তার অভিভাবক এই অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। পোস্ট অফিসের এই স্কিমে (Post Office Scheme), ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সের তিনজন ব্যক্তি একসাথে একটি যৌথ অ্যাকাউন্টও খুলতে পারেন। সারা দেশের যেকোনো পোস্ট অফিসে এই স্কিমে বিনিয়োগ করে সুবিধা পাওয়া যায়। এখন অনলাইনেও এই একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা আছে।

কীভাবে বিনিয়োগ করা যাবে?
আপনি যদি এবার এই স্কিমে (Post Office Scheme) বিনিয়োগ করতে চান তাহলে আপনাকে নিজের নিকটস্থ যেকোনো পোস্ট অফিসে গেলেই হলো। সেখানে আপনার পরিচয়পত্র আর ছবি নিয়ে যেতে হবে। আবেদন পত্র পূরণ করে টাকা জমা দিলেই হলো। আবেদন এবং অর্থ জমা দেওয়ার পরে, আপনি কিষান বিকাশ পত্রে বিনিয়োগের শংসাপত্র পাবেন।

আরও পড়ুন, বর্তমানে ভারতে সবচেয়ে বেশি সুদ দিচ্ছে ব্যাংকের এই স্কীমে টাকা রাখলে, টাকা থাকবে সুরক্ষিত।

Advertisement

আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জেনে রাখুন।
যেকোন স্কিমেই প্রায়ই আয়করে ছাড় পাওয়া যায়। কিন্তু মাথায় রাখবেন এই স্কিম কিন্তু আয়কর আইনের 80(C) অধীনে আসে না। এক্ষেত্রে আপনি বিনিয়োগের পরে যে রিটার্ন পাবেন সেখানে আপনাকে কর দিতে হবে। তবে এই স্কিমের মাধ্যমে ঋণ নেওয়ার সুবিধা রয়েছে, সেখানে গ্যারান্টি হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে এই কিষান বিকাশ পত্র।

এমন সব স্কিমের বিষয়ে বিশদে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করতে থাকুন। আপনার মতামত আমাদের কমেন্ট বক্সে অবশ্যই জানান। কারন তা আমাদের কাছে অনেক অবদান রাখে। ধন্যবাদ।
Written by Mukta Barai.

এই 4 টি নিয়ম না মানলে, বাতিল হবে রেশন কার্ড, কার্ড বাঁচাতে এক্ষুনি দেখুন।

Advertisement
Advertisement
3 thoughts on “Post Office Scheme – আবার চালু হলো, পোষ্ট অফিসে টাকা দ্বিগুন করার প্রকল্প, মন্দার বাজারে গুরুত্ব পাচ্ছে পোস্ট অফিসের এই স্কিম।”
  1. ১০ বছর ৪মাস সময় টা বড্ড বেশী, ৭বছর হলে ভাল হত। অবসরপ্রাপ্ত জনগন টাকা বিনিয়োগ করে তার সুফল পাবার আগেই স্বর্গলাভ করবেন, সরকার একটু ভেবে দেখুন।

  2. কত টাকা Maturity হলে বা জমা করলে তা আয়করের অধীনে আসবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement