KYC Status – ব্যাংকে KYC Documents নিয়ে সব ঝামেলা শেষ, সব গ্রাহকের জন্য প্রযোজ্য।

KYC Documents, KYC Status এর জন্য আর লাইন দিতে হবে না ব্যাংকের দরজায়, ঘরে বসেই করতে পারবেন এই কাজ।
ব্যাংকের দরজায় গিয়ে লাইনে দাঁড়ানোর দিন শেষ। আর বারবার যেতে হবে না ব্যাংকে। খুব সহজেই কাজটি করে ফেলতে পারবেন গ্রাহকেরা।

Advertisement

KYC Status Document Update:

কষ্ট করে উপার্জন করা টাকা সমস্ত মানুষই ব্যাংকে সঞ্চয় করেন। ভবিষ্যতের কথা ভেবে কর্ম জীবন থেকেই টাকা সঞ্চয় করে যেতে হয়। আর টাকা সঞ্চয় করার কথা ভাবলেই প্রথমেই মনে আসে একটি ব্যাংক একাউন্ট। এবার অধিকাংশ মানুষের এই মুহূর্তে দেশের যেকোনো ব্যাংকে একাধিক একাউন্ট রয়েছে। সেভিংস অ্যাকাউন্ট (Savings Account) থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে অধিকাংশ দেশবাসী টাকা সঞ্চয় করে থাকেন।
এবার সকলেই জানেন, ব্যাংকে একাউন্ট থাকলে নিয়মিত কেওয়াইসি KYC Documents জমা দিতে হয়।

Advertisement

কেওয়াইসি ফরম ফিলাপ (KYC Status Form) করে নির্দিষ্ট সময়ে ব্যাংকে গিয়ে কেওয়াইসি আপডেট KYC Update করতে হয়। যদি কোনো গ্রাহক কখনো KYC Status Form জমা দিতে ভুলে যান বা কোনো কারণবশত একটু দেরি হয়ে যায়, তাহলে ব্যাংকের তরফে একাধিকবার মেসেজ পাঠানো হয়। এমনও দেখা গিয়েছে, ব্যাংকের তরফে লেনদেন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আর তার ফলে গ্রাহকরা যথেষ্ট সমস্যায় পড়েন। হঠাৎ যদি ব্যাংকের একটি চালু অ্যাকাউন্টে লেনদেন বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে চরম সমস্যার সম্মুখীন হন সেই গ্রাহক।

আর সেই সময়ে নির্দিষ্ট গ্রাহক ব্যাংকে গিয়ে খোঁজ শুরু করতেই ব্যাংকের তরফে জানানো হয়, কেওয়াইসি আপডেট (KYC Status Update) করতে হবে। আর ব্যাংকের লাইনে দাঁড়িয়ে এই কেওয়াইসি আপডেটের প্রক্রিয়া করতে গিয়ে যথেষ্ট হয়রানির সম্মুখীন হন গ্রাহকরা। যাতে আগামী দিনে এই KYC Status Update করা নিয়ে ব্যাংকের তরফে গ্রাহকদের হেনস্থার মুখে না পড়তে হয়, সমস্যার মুখে না পড়তে হয়, তাই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে কেওয়াইসি আপডেট প্রক্রিয়া সরল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

টিভি দেখা ফ্রি (Watch TV without set top box)

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন, এবার থেকে ব্যাংকে নিয়মিত গিয়ে কোনো গ্রাহককে KYC Status Update করতে হবে না। ব্যাংক একাউন্ট তৈরির সময়ে যে কোনো গ্রাহককে কেওয়াইসি জমা দিতে হয়। ফলে একবার কেওয়াইসি জমা দিলেই হবে। পরে যদি ব্যাংকের পরিকাঠামোগত কোনো পরিবর্তন বা সেই গ্রাহকের অন্যান্য কোনো জরুরি পরিবর্তন হয়ে থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে তিনি ব্যাংকে গিয়ে কেওয়াইসি আপডেট করতে পারেন। এছাড়া অনলাইনের মাধ্যমে বা ইমেইল করেও কেওয়াইসি আপডেট করা যেতে পারে।

Advertisement

91 টাকার রিচার্জ প্ল্যান লঞ্চ হতেই হু হু করে গ্রাহক বাড়ছে জিও এর, এক রিচার্জে সবকিছু।

তবে এক্ষেত্রে সরকারের তরফে KYC Status Update এর নতুন প্রক্রিয়া নিয়ে বিস্তারিতভাবে সমস্ত কিছু জানানো হলে গ্রাহকেরা আরো নিশ্চিত হয়ে যাবেন বিষয়টি সম্বন্ধে। কেওয়াইসি আপডেটকে KYC Status Update কেন্দ্র করে এতদিন ধরে যে গ্রাহকরা ব্যাংকের দরজায় গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতেন, সেই সমস্যা আর থাকলো না। একাউন্ট তৈরির সময় একবার কেওয়াইসি জমা দিলেই হয়ে যাবে, এমনটাই সূত্র মারফত জানা গিয়েছে। এবার যদি কোনো জরুরি প্রয়োজনে ব্যাংকের কেওয়াইসি জমা করার জন্য গ্রাহকের প্রয়োজন হয় তাহলে সে ক্ষেত্রে গ্রাহককে হয়তো যেতে হতে পারে।
Written By Rajib Ghosh.

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাড়ি বসে PAN Card করার সম্পূর্ণ আবেদন পদ্ধতি দেখে নিন।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment