Krishak Bandhu Status – কৃষকদের একাউন্টে টাকা দিচ্ছে রাজ্য সরকার। দেখুন এই মাসের কৃষক বন্ধু লিস্ট।

বছরের শেষেই পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত কৃষকদের জন্য শুরু করা কৃষক বন্ধু প্রকল্প বা Krishak Bandhu Status নিয়ে বিরাট সুখবর। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রত্যেক কৃষককে বছরের শেষ মাসে দেওয়া হতে চলেছে নগদ 2000 থেকে 5000 টাকা পর্যন্ত ভাতা। পশ্চিমবঙ্গের মোট ১ কোটি ২০ লক্ষ কৃষককে এই সুবিধা দেবে রাজ্য সরকার। চলতি মাসের শুরুতেই সরকার একটি ঘোষণা মারফত জানিয়েছিল।

Advertisement

Krishak Bandhu Status Check Online Process.

ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহের মধ্যে নাকি সকল কৃষক পেয়ে যাবেন তাদের ব্যাংক একাউন্টে (Bank Account) সরাসরি এই টাকা। আর এবার নিজের কথা রেখে সরকার মাস তথা বছর শেষেই সমস্ত কৃষকদেরকে দিয়ে দিল সেই টাকা। আপনিও কি টাকা পেয়ে গেছেন? জানতে হলে এখনই নিজের কৃষক বন্ধু প্রকল্পের স্ট্যাটাস (Krishak Bandhu Status) চেক করুন অনলাইনে এইভাবে।

Advertisement

কৃষক বন্ধু প্রকল্পে টাকা ঢুকল

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee) তার চালু করা কৃষক বন্ধু প্রকল্প (Krishak Bandhu Status) মাধ্যমে প্রতিবছর রাজ্যের উপযুক্ত কৃষকদের ব্যাংক একাউন্টে সরাসরি ভাতার টাকা প্রদান করে থাকেন। সাধারণত বছরে দুবার তাদের টাকা দেওয়া হয় এই প্রকল্পে। একটি খারিফ মরসুমের টাকা, যেটি আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে পান কৃষকরা। আরেকটি হলো রবি মরশুমের টাকা, যেটি ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারি মাসের মধ্যে ঢোকে কৃষকদের একাউন্টে (Krishak Bandhu Status Check).

এই বছর খারিফ মরশুমের টাকা ইতিমধ্যেই বিতরণ করা হয়ে গেছে। এবার রবি মরশুমের টাকার পালা, যা ১২ ডিসেম্বর ২০২৩ তারিখ থেকে ঢুকতে (Krishak Bandhu Status) শুরু করে দিয়েছে অনেক কৃষকের ব্যাংক একাউন্টে। আপনিও পেলেন নাকি? এখনই চেক করে নিন। আমাদের সকলের অন্নদাতাদের জন্য রাজ্য সরকারের (West Bengal Government) এই পদক্ষেপ সর্বক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভাবে স্বীকৃত হয়েছে।

কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সুবিধা

  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পের (Krishak Bandhu Prakalpa) মাধ্যমে কৃষকদের মাসিক সর্বনিম্ন ৪ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ভাতা দেওয়া হয়।
  • কৃষক বন্ধু প্রকল্পে যে সমস্ত কৃষক ১ একর পরিমাণ জমি দিয়ে আবেদন করেন তাদেরকে একটি কিস্তি মারফত নগদ ২০০০ টাকা প্রদান করা হয়। আর যারা ১ একরের বেশি পরিমাণ জমি দেখান তাদেরকে একটি কিস্তিতে নগদ ৫০০০ টাকা ভাতা দেওয়া হয়।
  • এছাড়াও এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের মৃত্যুর পর তার পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বীমার সুবিধাও প্রদান করে সরকার (Krishak Bandhu Status).

কৃষক বন্ধু প্রকল্পে টাকা পেয়েছেন

রেশন কার্ড (APL to BPL Ration Card

১. প্রথমে আপনাকে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চালু করা নির্দিষ্ট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.krishakbandhu.net এতে যেতে হবে।
২. তারপর Check Application Status অপশানের উপর ক্লিক করতে হবে।
৩. এরপর Select লেখা ড্রপডাউন অ্যারোতে ক্লিক করে নির্দিষ্ট তথ্য বেছে নিতে হবে।
৪. এরপর প্রকল্পে‌ আবেদন করার পর পাওয়া অ্যাপ্লিকেশন নাম্বারটি নিচের টেক্সট বক্সে দিয়ে সার্চ বাটনে ক্লিক করলেই আপনার Krishak Bandhu Status দেখানো হবে নিচে।

Advertisement

বড়দিনে নরেন্দ্র মোদীর নতুন প্রকল্প চালু। এই কাগজ থাকলেই টাকা পাবেন।

৫. এখানে যদি দেখেন ‘Approved’ স্ট্যাটাস দেওয়া রয়েছে তাহলে জানবেন আপনার কৃষক বন্ধু প্রকল্পে নাম নথিভুক্তকরণ সম্পন্ন হয়েছে।
৬. এরপর টাকা ঢুকেছে (Krishak Bandhu Status) নাকি দেখতে পারবেন। যদি ‘Transaction Status’ লেখার নিচে ‘Transaction Success’ লেখা থাকে তবেই জানবেন আপনার টাকা ব্যাংক একাউন্টে চলে গেছে। অন্যথায় আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে টাকা ঢোকার জন্য।
Written by Nabadip Saha.

রাজ্যের নতুন প্রকল্প। সিনিয়র সিটিজেনদের বিশাল সুবিধা দিচ্ছে রাজ্য সরকার!

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment