Kisan Vikas Patra – পোস্ট অফিসে কিষান বিকাশ পত্র প্রকল্পে এই নিয়মে টাকা রাখলেই রকেটের গতিতে ডবল হবে।

পোষ্ট অফিসের Kisan Vikas Patra স্কিমে টাকা রাখুন, মালামাল হয়ে যাবেন।

আপনি যদি নিরাপদে এবং উচ্চ হারে সুদ নিয়ে টাকা সঞ্চয় করতে চান তবে Kisan Vikas Patra বা কিষান বিকাশ পত্র প্রকল্প আপনার জন্য অন্যতম সেরা সঞ্চয়ের পরিকল্পনা হতে পারে।
মাথার ঘাম পায়ে ফেলে অধিকাংশ মানুষ যে টাকা উপার্জন করেন সেই টাকা ঝুঁকিহীন, নিরাপদ প্রকল্পে সঞ্চয় করতে চান সকলেই। যাতে কষ্টের টাকা একটুও নষ্ট না হয়। যে কারণে টাকা বিনিয়োগ করছেন সেই উদ্দেশ্য যেন সফল হতে পারে। আর্থিক ক্ষতির মুখে যেন পড়তে না হয়।

Advertisement

আর তাই এখনো অধিকাংশ মানুষ পোষ্ট অফিসের উপর নির্ভর করেন। ডাকঘরের বিভিন্ন স্কিমে (Post Office Scheme) টাকা সঞ্চয় করতে থাকেন তারা। এরকমই একটি প্রকল্পের বিষয়ে জানানো হবে যেখানে একদিকে যেমন বিনিয়োগ করা টাকা ডবল হবে, তেমনি কোনো ঝুঁকি থাকবে না।
পোষ্ট অফিসের এই স্কিমটি হলো কিষান বিকাশ পত্র বা Kisan Vikas Patra.

Advertisement

কিষান বিকাশ পত্রে (Kisan Vikas Patra) যে টাকা বিনিয়োগ করবেন তা ১২০ মাসে ডবল হবে। এটি একটি দুর্দান্ত বিনিয়োগ স্কিম। এই স্কিমে সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার সুদের হার বাড়িয়েছে। কিষান বিকাশ পত্রে ০.২০ শতাংশ সুদ বাড়ানো হয়েছে। আর সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে বিনিয়োগকারীদের টাকা আগের তুলনায় তিন মাস আগে ডবল হয়ে যাবে।

KVP Scheme এ ১২৩ মাসে বিনিয়োগ করা টাকা ডবল হতো। সেখানে ২০২৩ সালের ১ জানুয়ারি থেকে কেন্দ্রীয় সরকার Kisan Vikas Patra তে ১২৩ মাসের বদলে ১২০ মাসে বিনিয়োগকারীদের টাকা দ্বিগুণ করবে। কিষান বিকাশপত্রে (Kisan Vikas Patra) বিনিয়োগ করলে বর্তমানে ৭.২০ শতাংশ সুদ পাওয়া যাবে। এর আগে ১২৩ মাসের ৭% সুদ পাওয়া যেত। সেখানে এখন ১০ বছর মেয়াদ হচ্ছে।

ফিক্সড ডিপোজিটে সুদের হার (Fixed Deposit Interest Rates on different Banks)

অ্যাকাউন্ট খোলার পদ্ধতি:
দেশের যেকোনো প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি কিষান বিকাশ পত্রের স্কিমে একাউন্ট খুলতে পারেন। ১০ বছরের কম বয়সী নাবালকের একাউন্টও খোলা যায়। ১০ বছর পুরো হলেই অ্যাকাউন্টটি তার নামে স্থানান্তর করে দেওয়া হয়। পোস্ট অফিসের শাখায় গিয়ে আবেদন পত্র পূরণ করতে হবে। তারপর যে পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করবেন সেটা নগদ, চেক বা ডিমান্ড ড্রাফটে জমা দিতে পারবেন। পরিচয় পত্র যোগ করতে হবে আবেদনের সঙ্গে। আবেদন এবং টাকা জমা দেওয়া হয়ে গেলেই কিষাণ বিকাশপত্রের শংসাপত্র দিয়ে দেওয়া হবে।

Advertisement

SBI তে একাউন্ট থাকলেই মিলবে 9 লাখ টাকা, এখনই জানুন আবেদনের পদ্ধতি ।

কত টাকা বিনিয়োগ করা যায়:
কিষান বিকাশ পত্রে বিনিয়োগের জন্য কোনো ঊর্ধ্বসীমা নেই। পোস্ট অফিসে কিষাণ বিকাশপত্র স্কিমে ১ হাজার টাকা দিয়ে বিনিয়োগ শুরু করা যায়। তারপর ১০০ টাকার গুণে বিনিয়োগ করা যেতে পারে। KVP একাউন্টে নমিনির সুবিধা রয়েছে। একক এবং যৌথ অ্যাকাউন্ট খোলা যায়।
Written by Rajib Ghosh.

বাতিল হওয়া পুরনো 1000 টাকার নোট লাখ টাকা, গল্প নয়, সত্যি সত্যি কিভাবে পাবেন।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment