Joy Bangla Pension Scheme List – আগামী মাস থেকে বিধবা ভাতা, বার্ধক্য ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা পাবেন না, যদি না করেন এই কাজ।

Joy Bangla Pension Scheme সরকারি প্রকল্পের টাকা পেতে হলে এক্ষুনি এই কাজটি করুন, না হলে সামনের মাস থেকেই টাকা ঢোকা বন্ধ।
টাকার টানাটানি কোষাগারে। তবুও বাংলার সাধারণ, গরিব, আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য এর মধ্যেই প্রায় ১০০ টির ওপর জনকল্যাণমূলক প্রকল্প চালু করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee). যার মাধ্যমে রাজ্যের একটা বৃহৎ অংশের মানুষ উপকৃত হচ্ছেন। কি নেই সেই প্রকল্পের তালিকায়?

Advertisement

Joy Bangla Pension Scheme কারা পাবেন না?

কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, সবুজ সাথী, স্বাস্থ্য সাথী, লক্ষ্মীর ভান্ডার, খাদ্য সাথী, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড, কৃষক বন্ধু, বিভিন্ন স্কলারশিপ, এছাড়াও রয়েছে সরাসরি আর্থিক সহায়তা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ভাতা প্রদান(Govt.Pension Scheme) প্রতিবন্ধী ভাতা, বিধবা ভাতা, বার্ধক্য ভাতার মতো প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হচ্ছেন বিরাট অংশের মানুষ। একদিকে যখন রাজ্য সরকার মানুষকে সুবিধা দেওয়ার লক্ষ্যে এই ধরনের প্রকল্প চালু করছেন, অপরদিকে একশ্রেণীর মানুষ অন্যায় ভাবে, অযোগ্য হওয়া সত্বেও, অবৈধভাবে এই তালিকায় নাম নথিভুক্ত করে সরকারের কাছ থেকে সাহায্য নিয়মিত নিয়ে যাচ্ছে।

Advertisement

এই মুহূর্তে এমন Joy Bangla Pension Scheme এর বহু সুবিধাভোগী আছেন, যারা এই ধরনের প্রকল্পগুলির সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে একেবারে আবেদনের যোগ্যই নন। তবুও তারা অনলাইন সিস্টেমকে কাজে লাগিয়ে অন্যায়ভাবে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করে সরকারের কোষাগার থেকে প্রতি মাসে এই ভাতার টাকা তুলে নিচ্ছেন। সম্প্রতি সরকারের চোখের সামনে এরকম একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের লাগাম ছাড়া দুর্নীতির অভিযোগ উঠে এসেছে। সেটি হলো লক্ষ্মীর ভান্ডার (Lakshmir Bhander), খাদ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় রেশনে ভুয়ো রেশন কার্ডধারীর তালিকায় নাম রয়েছে, এরকম প্রাপকেরা খাদ্য সামগ্রী তুলে নিচ্ছেন।

আর এবার তাই এই ধরনের প্রকল্পগুলিতে লাগামহীন এই দুর্নীতি আটকানোর জন্য রাজ্য সরকার কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছে। যার ফলে আগামী দিনে অযোগ্য কেউ সরকারের কোষাগার থেকে Joy Bangla Pension Scheme এর মতো এই ধরনের প্রকল্পের সুবিধা অন্যায় ভাবে নিতে পারবেন না। প্রযুক্তি যতই এগিয়েছে, সমস্ত প্রকল্পের যাবতীয় নিয়ম-কানুনও বদলেছে। এবার রাজ্য সরকার Joy Bangla Pension Scheme তথা প্রতিবন্ধী ভাতা, বার্ধক্য ভাতা এবং বিধবা ভাতার মতো সমস্ত পেনশন প্রকল্পের ক্ষেত্রেই কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছে। যাতে ভুয়ো Joy Bangla Pension Scheme ভাতা গ্রহণকারীরা আগামী দিনে আর এই প্রকল্প থেকে টাকা তুলতে না পারে।

কৃষকদের একাউন্টে নগদ 12000 টাকা দিচ্ছে সরকার, এই মাসের মধ্যেই নাম লেখান।

কি পদক্ষেপ নেওয়া হবে?
যারা যোগ্য, সঠিকভাবে এই পেনশন প্রকল্পের আওতায় রয়েছেন, তাদের এবার থেকে এই নিয়মবিধি মানতে হবে। তা না হলে মাসিক পেনশন বন্ধ হয়ে যাবে।
রাজ্য সরকার যে পদক্ষেপ নিতে চলেছে তা হলো, এই সমস্ত প্রকল্পগুলির ক্ষেত্রে আধার কার্ড (Aadhaar Card Link) সংযুক্তকরণ বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। যদি কোনো উপভোক্তা তার আধার কার্ড পেনশন প্রকল্প থেকে শুরু করে লক্ষ্মীর ভান্ডার, বার্ধক্য ভাতা, বিধবা ভাতা সহ বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক প্রকল্পের সঙ্গে সংযুক্ত না করেন, তাহলে আগামী মাস থেকে এই প্রকল্পের অধীনে প্রাপ্ত টাকা পাওয়া বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

Advertisement

একটু বুদ্ধি খাটিয়ে বিনা মূলধনে ঘরে বসে মোটা টাকা আয় করার 6টি সহজ উপায়।

এই টাকা পেতে কি করতে হবে?
উপভোক্তারা তাই এবার এতোটুকু দেরি না করে স্থানীয় পুরসভা, পঞ্চায়েত এবং বিডিও অফিসে গিয়ে এই প্রকল্পগুলির সুবিধা অব্যাহত রাখতে আধার কার্ড লিঙ্ক বা সংযুক্তকরনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নিয়মিত এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে চাইলে এক্ষুনি নিকটবর্তী সরকারি দপ্তরে গিয়ে আধার কার্ড সংযুক্ত করতে হবে।
Written by Rajib Ghosh.

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment