লটারিতে ভিটে মাটি সব গেছে, শেষে এই নিয়মে লটারি কেটে রাতারাতি কোটিপতি বাংলার যুবক।

লটারি জেতার আশা সবাই করে। কিন্তু জেতে মাত্র একজন। আর সেই ফাঁদে পড়েই নিঃস্ব হয় অনেকেই। আর এরকমই ঘটনা ঘটেছে, বাংলায়। Lottery কেটে ভিটেমাটি সব হারিয়েছে। আর অবশেষে গোপন কৌশল অবলম্বন করে কোটি টাকা জিতে নিলেন। কিভাবে জিতলেন এই লটারি, আসুন জেনে নেওয়া যাক।

Advertisement

লটারি টিকিট কেটে রাতারাতি বড়লোক হওয়ার স্বপ্ন কে না দেখেন? সেই স্বপ্নই সম্প্রতি সত্যি হল নদিয়া জেলার চাপড়া থানার বড় আন্দুলিয়ার বাসিন্দা আনারুল শেখের। বহু বছর ধরে Lottery Ticket কাটার নেশাতে রীতিমত বিক্রি হয়েছে তার যাবতীয় সম্পত্তি। কিন্তু, তবু তিনি হার মানেন নি। অবশেষে তার এই “হার না মানা সংগ্রাম” এর সমাপ্তি ঘটলো মহা নবমীর দিন। তিনি লটারি কেটে জিতলেন কোটি টাকা।

Advertisement

এই নিয়ম কাজে লাগিয়ে লটারি কেটে রাতারাতি কোটিপতি নদীয়ার এই যুবক। কি এই নিয়ম?

নিয়মিত হাজার হাজার টাকার টিকিট কাটার নেশার ফলে তিনি একে একে বিক্রি করেছেন ঘরের বহুল মূল্যবান সামগ্রী। ২৫ – ২৬ লক্ষ টাকার টিকিট কেটে হারিয়েছেন নিজের সমস্ত কিছু। এমনকি নিজের বসত বাড়ি টুকুও বাচেনি তাতে। সাথে আত্মীয় – পরিজনের সাথে সম্পর্কও খারাপ হয়েছে। এমনকি নিজের স্ত্রীও পাশে ছিলেন না তার।

কোন টিপস মেনে লটারি কাটলেন, জানতে ক্লিক করুন

সর্বস্ব খুইয়ে আশ্রয় নিয়েছিলেন মামার বাড়িতে। গলা পর্যন্ত দেনার দায় মেটাতে শেষে কাজ খুঁজতে গেছিলেন কেরালাতে। সম্প্রতি কাজ সেরে বাড়ি ফেরার সময় তিনি আন্দুলিয়া বাস স্ট্যান্ডের কাছে একটি লটারি টিকিট সেন্টার থেকে ১৫০০ টাকার টিকিট কাটেন। পরে তিনি জানতে পারেন তিনি কোটি টাকা জিতেছেন। সময় নষ্ট না করে তিনি নিরাপত্তার জন্যে দ্বারস্থ হন নিকটবর্তী পুলিশ স্টেশনে।

রাজ্যের বেকার ভাতা প্রকল্পে এই কাজটি না করলে, 1 টাকাও পাবেন না।

আনারুল জানিয়েছেন টিকিট কাটার এই অভ্যেসকে বিদায় জানাচ্ছেন। তিনি বলেন যে এভাবে নিজের সর্বস্ব বাজি রেখে Lottery কাটা উচিত নয়। তিনি বর্তমানে নিজের একটি ব্যাবসা করতে চান এবং নিজের হৃত সম্মান পুনরুদ্ধার করতে চান। নিজের মা-স্ত্রী-সন্তান-কে নিয়ে একটি সুখী সংসার চান তিনি। এবিষয়ে কোন প্রশ্ন বা বক্তব্য থেকে থাকলে নিচে কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন।
Written by Rajeswari Sur.

Advertisement
শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment