Personal Loan – হটাৎ টাকার দরকার হলে আর কারো হাত পাতবেন না। আধার কার্ড থাকলেই ব্যাংকে চলে যান।

জীবনে অর্থের অভাব কখন হয় বলা যায় না। আর এই কারণের জন্য আমাদের অনেক সময় Personal Loan বা ব্যাক্তিগত ঋণ নেওয়ার প্রয়োজন পরে। রোজগার করলেও আমাদের অনেককেই টাকা ধার করতে হয় নানা প্রয়োজনে। সেই কারণে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমরা ব্যাংক থেকে লোন (Loan) নিয়ে থাকি। এই গুলোর জন্য একটা নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া আছে যা করতে খানিকটা সময় লেগে যায়।

Advertisement

Get Personal Loan With Minimal Interest Rate.

কিন্তু এমন কোনো পরিস্থিতি হল যখন আপনার জরুরী ভিত্তিতে টাকা প্রয়োজন তখন লোন কোথা থেকে পাবেন, একবারও ভেবেছেন কি? এক্ষেত্রে আপনি নিতে পারেন ব্যক্তিগত লোন (Personal Loan). এটি আপনার যে কোনো ইমার্জেন্সির সময় অর্থের যোগান দেবে। কিভাবে এই ব্যক্তিগত লোন পাবেন? কি কি দরকার এর জন্য, সব জেনে নিন।

Advertisement

What Is Personal Loan?

ব্যক্তিগত ঋণ হল এক ধরনের অসুরক্ষিত ঋণ (Unsecured Credit), যা ব্যাংক ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান গুলি (NBFC) দিয়ে যাকে। আপনার ব্যক্তিগত আয় ও অতীতের ঋণ নেওয়ার তথ্যের উপর ভিত্তি করেই ব্যাঙ্ক এই ঋণ অনুমোদন করে। একে কনজিউমার লোন বা গ্রাহক ঋণও বলা হয়ে থাকে, যা বিভিন্ন কারণে ব্যক্তিগত প্রয়োজন মেটাতে কেউ নিয়ে থাকে (Personal Loan).

Personal Loan EMI Process

EMI বা Equated Monthly Installment হলো একটি রিপেমেন্ট পদ্ধতি। এর মধ্যে সুদ ও আসল উভয় ধরা থাকে। ব্যাংকের কাছ থেকে আপনি যত টাকা ঋণ নিচ্ছেন তার সুদ গুনে গুনে আসলসহ ফেরত দিতে হবে ব্যাংকের কাছে। EMI বিভিন্ন সহজ কিস্তিতে গ্রাহকদের ঋণ প্রদান করে থাকে। বিভিন্ন Bank EMI এর মেয়াদ ও সুদের হার (Personal Loan Interest Rate) ভিন্ন ভিন্ন হয়।

গ্রাহকরা নিজেদের সুবিধা মতো যে কোন মেয়াদ নির্বাচন করে ঋণ পরিশোধ করতে পারেন। এই সুদের হার ও মেয়াদ আপনাকে ঋণ (Personal Loan) নেওয়ার সময় নির্বাচন করতে হয়। সেই মতো প্রতি মাসে সুদ মেটাতে হয় ব্যাংকে। এক্ষেত্রে কাগজ পত্রের ব্যবহার অনেক কম, তাই প্রসেসিং হতে সময় বেশি লাগে না। শুধু গুড ক্রেডিট স্কোর (Credit Score) বেশি সুদের হারের বিষয়টি মাথায় রাখতে হয়।

Advertisement

Personal Loan Apply Eligibility

  • পার্সোনাল লোন নিতে গেলে একজন গ্রাহককে সর্বনিম্ন ২১ থেকে সর্বোচ্চ ৬০ বছর বয়সের মধ্যে হতে হয়।
  • গ্রাহকের ক্রেডিট স্কোর অবশ্যই ৭৫০ থেকে ৯৫০ এর মধ্যে হতে হবে।
  • কোন নির্দিষ্ট আয় না থাকলে ঋণ পেতে অসুবিধা হয়। যারা ব্যবসায়ী তাদের ক্ষেত্রে একটি স্থিতিশীল বার্ষিক আয় থাকা প্রয়োজন।
  • যারা সরকারি কর্মচারী বা পেনশন ভোগী হয়ে থাকেন তাদেরকে খুব সহজে লোন দিয়ে দেওয়া হয়।

Personal Loan For All Leading Indian Banks

১) State Bank Of India ১৮ বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তিদের ২৫ হাজার টাকা থেকে 15 লক্ষ টাকা পর্যন্ত পার্সোনাল লোন দেয়।
২) Punjab National Bank ১৮ বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তিদের ৫০০০০ টাকা থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পার্সোনাল লোন দেওয়া হয়।
৩) Bank Of Maharastra ২১ বছর থেকে ৬০ বছর বয়সী ব্যক্তিদের Personal Loan দিয়ে থাকে। এই ব্যাংক সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত পার্সোনাল লোন দিয়ে থাকে।

৪) Canara Bank ১৮ বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তিদের সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত পার্সোনাল ঋণ দিয়ে থাকে।
৫) Axis Bank ২১ বছর থেকে ৬০ বছর বয়সী ব্যক্তিদের ৫০ হাজার টাকা থেকে ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত পার্সোনাল লোন দিয়ে থাকে।
৬) ICICI Bank ২৩ বছর বয়সী থেকে ৫৮ বছর বয়সী ব্যক্তিদের সর্বোচ্চ পরিমাণ ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পার্সোনাল লোন দিয়ে থাকে।

Bandhan Bank Loan (বন্ধন ব্যাংক লোন)

How To Apply For Personal Loan

ব্যক্তিগত লোনের জন্য আবেদন অনলাইন অফলাইনে দুভাবেই করা যায়। অফলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে আপনার যে ব্যাংকে একাউন্ট রয়েছে সেখানে গিয়ে যোগাযোগ করুন। যদি আপনার যোগ্যতা থাকে তবে ব্যাংকের তরফ থেকে একটি ফর্ম দেওয়া হবে। সেই ফর্ম নিজের হাতে পূরণ করে তার সঙ্গে উপযুক্ত নথিপত্র সহকারে আপনাকে জমা দিয়ে দিতে হবে। কি কি নথি জমা দিতে হবে সেই সম্পর্কে জেনে নিন।

এই কার্ড করলে বিনা সুদে 10 লাখ টাকা দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই টাকা পেতে কিভাবে আবেদন করবেন?

Personal Loan Apply Documents

১) Passport, Voter ID Card, Driving License, Aadhaar Card.
২) ঠিকানার প্রমাণ হিসাবে ভোটার কার্ড বা আধার কার্ড।
৩) আগের ৩ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট, দুটি সর্বশেষ বেতন স্লিপ।
৪) বর্তমান তারিখের বেতন শংসাপত্র সহ সর্বশেষ ফর্ম 16 শেষ ব্যবহারের প্রমাণ জমা করে দিন। এরপর আপনার লোন স্যাংশন হয়ে যাবে।
Written by Nabadip Saha.

মোট 11 কোটি যুবক যুবতীরা 1 লাখ টাকা পাবে। ভোটের আগে এবারের বাজেটে নতুন প্রকল্প।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment