Primary TET Scam – জাস্টিস গাঙ্গুলীর 32000 প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি বাতিলের নির্দেশের যুক্তি কি? কৈফিয়ত চাইল উচ্চ আদালত।

পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি বা Primary TET Scam নিয়ে এক গুরুত্বপূর্ণ খবর এই মুহূর্তে জানতে পাওয়া যাচ্ছে। চলতি বছরের মে মাসে সারা পশ্চিমবঙ্গবাসী দেখেছিল হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Justice Abhijit Ganguly) নির্দেশে বাতিল হয়েছিল প্রাথমিক স্কুলের ৩২ হাজার শিক্ষকের চাকরি। বিচারপতি সৌমেন সেন এবং বিচারপতি উদয় কুমারের ডিভিশন বেঞ্চ সম্প্রতি সমস্ত পক্ষর কাছে জানতে চেয়েছে যে এই ৩২ হাজার শিক্ষকের চাকরি পাওয়া প্রার্থীদের কেন চাকরি বাতিল করা হল?

Advertisement

New Update On 32000 Primary TET Scam.

এই সব পক্ষকে আগামী ১৮ ডিসেম্বরের মধ্যে লিখিত যুক্তি জমা দিতে হবে ৩২ হাজার শিক্ষকের চাকরি বাতিলের বিষয়ে। আগামী বছরের জানুয়ারি মাস থেকে এই Primary TET Scam মামলার শুনানি শুরু হবে। ২০১৪ সালে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য টেট পরীক্ষা (TET Exam) নিয়েছিল। ওই টেট পরীক্ষার পরীক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ১ লক্ষ ২৫ হাজার জন পরীক্ষার্থী TET পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিল।

Advertisement

২০১৬ সালে ওই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ (WBBPE). TET পরীক্ষায় পাশ করা প্রার্থীদের মধ্যে ৪২,৯৪৯ জন চাকরি পেয়েছিল। প্রিয়াঙ্কা নস্কর সহ ১৪০ জন চাকরিপ্রার্থী ওই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ (Primary Teacher Recruitment) প্রক্রিয়ায় ত্রুটি থাকার জন্য হাইকোর্টে (Calcutta High Court) মামলা দায়ের করেছিল। মামলাকারীদের বক্তব্য ছিল প্রাথমিক শিক্ষক (Primary TET Scam) পদে চাকরি পাওয়া ৪২,৯৪৯ প্রার্থীর মধ্যে ৩২,০০০ জন প্রার্থীদের প্রশিক্ষণ ছিল না।

এমনকি নিয়োগেও অনেক ‘অনিয়ম’ হয়েছে। ইন্টারভিউ এবং ‘অ্যাপটিটিউড টেস্ট’ ছাড়াই চাকরি দেওয়া হয়েছিল শুধুমাত্র টাকার বিনিময়ে। এরপর বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় কয়েকজন পরীক্ষার্থী ও পরীক্ষকের সমস্ত বক্তব্য রেকর্ড করে খতিয়ে দেখেন যে মামলাকারীদের অভিযোগ সঠিক রয়েছে। তাই তিনি ৩২ হাজার চাকরিপ্রার্থীদের চাকরি বাতিলের নির্দেশ দিয়েছিলেন (Primary TET Scam).

Cash Limit (নগদ টাকা রাখার সীমা)

এই সময় তিনি মন্তব্য করেছিলেন যে ‘এই নিয়োগে ব্যাপক দুর্নীতি করা হয়েছে, ঢাকি সমেত বিসর্জন দিয়ে দেব।১২ই মে হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ দেন যে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের চাকরির পরীক্ষায় অনেক অসংগতি বা দুর্নীতি (Primary TET Scam) করা হয়েছে তাই ৩২ হাজার শিক্ষকের চাকরি বাতিল করা হল। এর পাশাপাশি তিনি আরও নির্দেশ দেন যে আগামী চার মাস ওই ৩২ হাজার চাকরি পাওয়া প্রার্থীরা প্যারা টিচারের (Para Teacher) সমান বেতন পাবেন।

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গে আবার শুরু দুয়ারে সরকার ক্যাম্প। কোথায় কবে? নতুন কি কি প্রকল্প ও সুবিধা পাবেন?

আগামী তিন মাসের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদকে (West Bengal Board Of Primary Education) নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করার নির্দেশ জারি করেন। নিয়োগের পরীক্ষায় এই ৩২ হাজার চাকরি পাওয়া শিক্ষকরা অংশ নিতে পারবে। এরপর সৌমেন সেন এবং উদয় কুমারের ডিভিশন বেঞ্চ চাকরি বাতিলের উপর স্থগিতাদেশ জারি করেছে। Primary TET Scam বা শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এরপরে কি হতে চলেছে।
Written by Nupur Chattopadhyay.

জেলায় জেলায় প্রাইমারি স্কুলে কর্মী নিয়োগ। বেতন 22000 টাকা, প্রশিক্ষণ

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment