মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের খারাপ খবর। পরীক্ষার 2 মাস আগে এমন সিদ্ধান্তে মন খারাপ সকলের।

বাকি আর দুই মাস, মাধ‍্যমিক পরীক্ষার আগেই আশঙ্কার কথা জানাল পর্ষদ।

পুজোর ছুটির পরই শেষ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ মধ্য শিক্ষা পর্ষদের মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তুতি টেস্ট পরীক্ষা (WBBSE Test Exam). আর ইতিমধ্যেই বিভিন্ন স্কুল মাধ্যমিক টেস্ট পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ করে ফর্ম ফিলাপ শুরু করে নাম বোর্ডে পাঠিয়ে দিয়েছেন। আর সেই লিস্ট দেখে কার্যত মাথায় হাত শিক্ষক তথা পর্ষদের। যার জেরে অতিরিক্ত চাপে থাকবে এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরাও।

Advertisement

মাধ্যমিক পরীক্ষা ২০২৩ সালের ফর্ম ফিলাপ করা বা আবেদন করার তালিকা কোনও ভাবেই সন্তোষজনক নয়। বাংলার শিক্ষার তথ্য অনুসারে যেখানে আগের বারের চেয়ে এবার দশম শ্রেণীতে পড়ুয়ার সংখ্যা সারা রাজ্যে ৮০ হাজার এর চেয়ে বেশি। সেখানে আবেদন করা পরীক্ষার্থীর সংখ্যা অনেক কম। অনেক পরীক্ষার্থী মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসার জন্য আবেদন ও করেনি!

Advertisement

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সংখ্যা কমে গেলো

মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে এবার আশঙ্কার কথা শোনাল মধ‍্যশিক্ষা পর্ষদ। ইতিমধ্যে ২০২৩ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তুতি প্রায় চূড়ান্ত করা হয়ে গিয়েছে। সমস্ত স্কুলে টেস্ট পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। আর মাত্র দুই মাস পরেই পরীক্ষা। আর এর মধ্যে যে আশঙ্কার কথা জানা যাচ্ছে সেটা হল এই বছর পরীক্ষার্থীদের সংখ্যা অনেকটাই কমে যাবে। এর আগে ২ বছর অতিমারির কারণে মাধ্যমিক স্বাভাবিক নিয়মে করা যায় নি।

কিন্তু এবার যখন সেই পরীক্ষা স্বাভাবিক ভাবেই হতে চলেছে তখন দেখা যাচ্ছে এক ধাক্কায় অনেকটাই কমে যাচ্ছে পরীক্ষার্থীদের সংখ্যা।
যদিও এর কারণ হিসেবে পর্ষদের তরফ থেকে যা জানা যাচ্ছে তা হল, ২০১৩ সালে কেন্দ্রীয় আইন বলবৎ হওয়ার ফলে কেউই ৬ বছরের নিচে আর ক্লাস ওয়ানে ভর্তি হতে পারছে না। তাই ১০ বছরের কম বয়সীদের পঞ্চম শ্রেণীতে ভর্তি করা প্রায় নিষিদ্ধ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু আসলে এই নিয়ম আগেও ছিলো। আর বাংলার শিক্ষায় আগের বারের চেয়ে এবারে দশম শ্রেণীতে পড়ুয়ার সংখ্যা আগের বারের চেয়ে বেশি। তাহলে পরীক্ষার্থী কমার কারন কি?

এর উত্তরে জানা যাচ্ছে অতিমারীর সময়ে স্কুলছুটের সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে গেছে। বহু ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছে। অনেকেই ভিন্ন রাজ্যে কাজে চলে গিয়েছে। তাই তাদের আর স্কুলমুখী করা যায়নি। সেই কারণে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী কমে গেছে। অন্যদিকে অনেকেই এই দুই বছরের অনভ্যাসে ফের মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসতে ভয় পাচ্ছে। তাই অনেকেই আবেদন করেনি।

Advertisement

JIO নিয়ে এল নতুন বছরের জন্য কম দামের মধ্যে ধামাকা রিচার্জ প্ল্যান। দেখে নিন শীঘ্রই।

মধ্যশিক্ষা পর্ষদ জানিয়েছে, এবার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কতটা কমেছে তা সম্পূর্ণ বিস্তারিত জানা যাবে এনরোলমেন্ট প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হয়ে যাবার পর। তবে পরীক্ষার্থী কমলে পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যাও এবার কমে যাবে। এদিকে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কমে যাওয়ায়, কিম্বা অনেকেই পরীক্ষা দিচ্ছেনা জেনে, অন্য পরীক্ষার্থীর উপরেও মানসিক প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে, সেই আশংকা করছেন শিক্ষকদের একাংশ।
Written by Rajib Ghosh.

পড়াশোনার পাশাপাশি ছাত্র ছাত্রীদের রোজগার করার দারুন সুযোগ, যে কেউ পারবে।

শেয়ার করুন: Sharing is Caring!

Leave a Comment