Advertisement
বকেয়া ডিএ (Arrear DA)
Advertisement

বকেয়া ডিএ লড়াইয়ে একধাপ এগোলেন সরকারি কর্মীরা?কি হতে পারে, জানুন।

বকেয়া ডিএ পাওয়ার ক্ষেত্রে কি রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা একধাপ এগিয়ে গেলেন? এই প্রশ্নটা এবার উঠতে শুরু করেছে। দীর্ঘদিন ধরে এই বকেয়া ডিএ পাওয়ার দাবিতে একদিকে আদালতে মামলা করেছেন সরকারি কর্মীরা, অন্যদিকে রাস্তায় নেমে আন্দোলন করছেন।

Advertisement

কলকাতা হাইকোর্ট রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া Dearness Allowance দিয়ে দেওয়ার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দেয়। কিন্তু হাইকোর্টের সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সরকারের তরফে সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল লিভ পিটিশন (SLP) দাখিল করা হয়।

এবার ১৬ জানুয়ারি সেই মামলার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু তবুও একটা প্রশ্ন উঠছে, এবার কি রাজ্য সরকারের উপরে বকেয়া ডিএ দেওয়ার জন্য সরকারি কর্মীরা আরো একধাপ দাবি জানানোর ক্ষেত্রে এগিয়ে গেলেন?
কারণ ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা ইতিমধ্যেই সেই রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের ১২% DA/DR জানুয়ারি মাস থেকে বৃদ্ধি হবে বলে ঘোষণা করেছেন।

Advertisement

সে ক্ষেত্রে ডিআরডব্লিউ, এম আর ডাব্লিউ, পি টি ডব্লিউ এবং যুক্তিভিত্তিক কর্মীদেরও ৫০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি করার কথা ঘোষণা করা হয়েছে।
আর এর পরেই পশ্চিমবঙ্গের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী একটি ফেসবুক পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, নতুন বছরের শুরুতেই ত্রিপুরার সরকারি কর্মচারীদের জন্য সুখবর। ত্রিপুরার সরকারি কর্মী এবং পেনশনভোগীরা বাড়তি মহার্ঘ ভাতা পাবেন। যেটা ১ ডিসেম্বর থেকেই বকেয়া ডিএ বাড়ানো হবে। সেই রাজ্যের সরকারি কর্মী এবং পেনশনভগীদের ১২ শতাংশ DA বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ত্রিপুরা রাজ্য সরকারি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীরা ৮% হারে DA বা DR পেতেন এতদিন। সেটা এই ১২ শতাংশ বৃদ্ধির ফলে ২০ শতাংশ গিয়ে দাঁড়ালো। আর সামনেই রয়েছে ত্রিপুরার বিধানসভা নির্বাচন। তাই তার আগে রাজ্যের ক্ষমতা ধরে রাখতে সরকারি কর্মচারীদের DA বাড়ানো হয়েছে। সপ্তম বেতন কমিশনের আওতায় কেন্দ্রীয় সরকারী কর্মচারীরা ৩৮% হারে ডিএ পান। সেখানে অবশ্য নতুন বছরে ত্রিপুরার সরকারি কর্মীরা ১৮% কম হারে ডিএ পাবেন।

EK24 News

বছরের শুরুতে দাম বাড়লো LPG গ্যাসের, মাথায় হাত মধ্যবিত্তের

শুভেন্দু অধিকারী বলেন, রাজ্য সরকারি কর্মীদের এর আগে এই সরকার দুই দফায় ৮% DA বাড়িয়েছিল। ২০ শতাংশ হারে DA দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। যার ফলে রাজ্যের ১ লক্ষের বেশি সরকারি কর্মী এবং ৮০ হাজারের বেশি পেনশনভোগী উপকৃত হবেন।

Advertisement

আরো জানান শুভেন্দু। তার কথায়, ত্রিপুরা সরকারের এই বকেয়া ডিএ বৃদ্ধির ফলে আগামী আর্থিক বছর থেকে ১৪৪০ কোটি টাকা অতিরিক্ত খরচ হবে। ফেসবুক পোস্টে শুভেন্দু লিখেছেন, এবার আশা করি পশ্চিমবঙ্গের সরকারি কর্মচারীদের প্রতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের এই অন্তহীন উপেক্ষার অবসান শীঘ্রই ঘটবে। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারি কর্মীদের পরিস্থিতি চাতক পাখির মত। ফেসবুক পোস্ট এর একেবারে শেষের দিকে গিয়ে রাজ্যের সরকারি কর্মীদের ডিএ নিয়ে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেছেন শুভেন্দু।

‘আসি যাই মাইনে পাই, দিন ভুলে যান’, পশ্চিমবঙ্গের সরকারি কর্মীদের কড়া বার্তা রাজ্য সরকারের।

জনৈক রাজ্য সরকারী কর্মীদের মতে, রাজ্য সরকারী কর্মীদের ভাগ্য কার্যত ছাগলের তৃতীয় সন্তানের মতো। প্রত্যেক রাজ্য তার কর্মীদের জন্য বেতন ভাতার জন্য আলাদা ফান্ড রাখে, আর পশ্চিমবঙ্গে রটানো হচ্ছে, বকেয়া ডিএ দিলে লক্ষ্মীর ভান্ডার বন্ধ হয়ে যাবে। ক্লাবে টাকা না দিলে পুজো বন্ধ হয়ে যাবে। অর্থাৎ সাধারন মানুষকে সরকারী কর্মীদের উপর এক প্রকার রাগিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। কিন্তু এটা অবশ্যই ভাববার বিষয়, যে সরকারী কর্মীদের বেতনের টাকায় কি কোনও সরকারী প্রকল্প চালানো যায়, এটাকি সত্যিই কোনও আইন সিদ্ধ? নিচে মন্তব্য করে জানাতে পারেন।
Written by Rajib Ghosh.

Advertisement
Advertisement
10 thoughts on “12% DA ঘোষণা হতেই চাপ বাড়লো নবান্নের উপর, বকেয়া ডিএ পেতে এক ধাপ এগোলেন পশ্চিমবঙ্গের কর্মীরা।”
  1. সরকারের উচিত রাজ্য সরকারী কর্মীদের বকেয়া মিটিয়ে দেওয়া, MLA দের অনেক টাকা, তাদের এক বছরের টাকা দিয়ে ৩ বছর লক্ষ্মীর ভান্ডার চালানো যাবে।

    1. Ai sarkarer theke asa kara banchonio nay. Karon sarkari ba sarkar posito kormi ra to sarkarer e kaj ke agia nia jan. R akhane adhikar chaite hay…abar chaile tader nimno srenir sathe samogotrio vaba hoea thake. Tai salary pachhen,atake jathesto mone kore baki din gulo katano e sreyo. R khichuri te dal chal alada kore dakhar ki ache.kon khater taka kon kaje bay hay sadharon manush to r janen na. Tai sab kathar tin katha holo …..chup…..!…cholche.

    2. Your observation is cent percent correct. More particularly Ministers should contribute towards welfare of common people.
      At a time when we the employees and pensioners of Assam Government including school and college teachers are enjoying DA/DR at the Central Government rate (currently 38%), I wonder those of West Bengal are getting only 3% and that too on 6th pay commission basic pay. Shame Shame.

  2. চোর সন্দেহ করার কি দরকার ছিল চোরকে চোর বলুন

  3. Advertisement
  4. My mother is 71years old brain stroke patient. Now a days medical expenses are so high to manage. Like my mother all pensioners are in trouble due to state government’s negligence to approve Dearness Allowance.

  5. Advertisement
  6. কাদের কুলের বউ গো তুমি কাদের কুলের বউ,
    ভাঁড়ারে টাকাও নেই,সঙ্গে নেই তো কেউ।
    আছে খালি ডান্ডা আর গুন্ডা
    খাও,চুরির টাকায় মন্ডা,
    তাহলে আর ডিএ তুমি দেবে কি করে???

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement